মেইন ম্যেনু

এরশাদের নেতৃত্বে জাপা ঐক্যবদ্ধ : বাবলু

জাতীয় পার্টির মহাসচিবের পদ থেকে অব্যাহতির পাবার পরও পার্টির চেয়ারম্যান এইচ এম এরশাদের নেতৃত্বে জাতীয় পার্টি ঐক্যবদ্ধ রয়েছে বলে জানিয়েছেন জিয়াউদ্দিন আহমেদ বাবুল এমপি। খুব সহসাই দলের মধ্যে চলমান সংকট কাটিয়ে জাতীয় পার্টি আগামী দিনের রাজনীতিতে নিয়ামক শক্তি হিসেবে আর্বিভূত হবে বলেও আশা প্রকাশ করেন তিনি।

শুক্রবার সকালে ঢাকা থেকে চট্টগ্রামের আসার সময় শাহ আমানত আর্ন্তজাতিক বিমানবন্দরের ভিআইপি লাউঞ্জে অপেক্ষমাণ সাংবাদিকদের তিনি এ কথা বলেন।

গত রোববার রংপুর এক কর্মীসভায় এরশাদ ছোট ভাই জি এম কাদেরকে পার্টির কো-চেয়ারম্যান ঘোষণার পাশাপাশি পার্টির কাউন্সিলের জন্য জি এম কাদেরকে আহ্বায়ক ও সাবেক মহাসচিব রুহুল আমিন হাওলাদারকে সদস্য সচিব করে একটি কমিটি ঘোষণা করেন।

এর প্রতিক্রিয়ায় গত সোমবার রাতে রওশন এরশাদপন্থি দলের বেশ কয়েকজন প্রেসিডিয়াম সদস্যদের নিয়ে বৈঠক করে দলের চেয়ারম্যানের সিদ্ধান্তকে প্রত্যাখান করে উল্টো বিরোধী দলীয় নেতা রওশন এরশাদকে ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান করার সিদ্ধান্তের কথা জানান জিয়াউদ্দিন আহমেদ বাবলু।

এর জের ধরে রংপুর থেকে ঢাকায় ফিরে মঙ্গলবার দুপুরে জিয়াউদ্দিন আহমেদ বাবলুকে মহাসচিব পদ থেকে অব্যাহতি দিয়ে সাবেক মহাসচিব এ বি এম রুহুল আমিন হাওলাদারকে মহাসচিব হিসেবে পুর্নবহাল করেন এরশাদ। এরপর থেকে আনুষ্ঠানিক কোনো প্রতিক্রিয়া জানাননি জিয়াউদ্দিন বাবলু। যদিও বিরোধী দলীয় চীফ হুইপ প্রথমে এরশাদের সিদ্ধান্তকে প্রত্যাখানের কথা জানালেও ঠিক দেড়ঘণ্টা পর সেই এরশাদকে সাথে নিয়েই বলেছেন এরশাদের সিদ্ধান্তই চূড়ান্ত। জাতীয় পার্টিতে নানা নাটকীয়তার মধ্যে মহাসচিব পদ হারানো পর নিজের এলাকায় এসে এই প্রথম সাংবাদিকদের কাছে মুখ খুললেন বাবলু।

পদ থেকে অব্যাহতি পাওয়া প্রসঙ্গে সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে জিয়াউদ্দিদ আহমেদ বাবলু বলেন, ‘আপনারা দেখেছেন, এটি নিয়ে অনেক প্রতিক্রিয়া পাল্টা প্রতিক্রিয়া দেয়া হয়েছে। আমি বলব, আমরা ঐক্যবদ্ধ আছি। পার্টির চেয়ারম্যান পল্লীবন্ধু হুসাইন মোহাম্মদ এরশাদ, সংদীয় কমিটির সদস্য, ওয়ার্কিং কমিটির সদস্য, প্রেসিডিয়ামের সদস্য, কেন্দ্রিয় ও জেলা কমিটিসহ দলের সকল স্তরের নেতাকর্মীরা ঐক্যবদ্ধ। বর্তমানে যে সংকট তৈরি হয়েছে সেটি ঐক্যবদ্ধ প্রচেষ্টায় কাটিয়ে উঠবো। আমরা বিশ্বাস করি জাতীয় পর্টি এক থাকবে, ঐক্যবদ্ধ থাকবে, সকল ষড়যন্ত্র নসাাৎ করে আগামী দিনের রাজনীতিতে জাতীয় টপর্টি নিয়ামক শক্তি হিসেবে ভূমিকা রাখবে।’

তিনি আরো বলেন, ‘জাতীয় পার্টি একটি বড় দল, বেগম রওশন এরশাদ জাতীয় সংসদের বিরোধী দলীয় নেতা। আমরা চাই দেশের রাজনীতিতে জালাও পোড়াও সহিংসতার রাজনীতি পরিহার করে নির্বাচনের মাধ্যমে যে গণতান্ত্রিক সূচনা রচিত হয়েছে সেটি অব্যাহত থাকুক। যেই সহিংস রাজনীতির শুরু হয়েছিল সেটির অবসান হয়েছে। মানুষ সুশাসন চায়, গণতন্ত্র চায়, উন্নয়ন চায়। আমরাও চাই প্রচলিত রীতিনীতি অনুযায়ী রাজনীতি চলুক।’

বাবলু আরো বলেন, ‘গণতান্ত্রিক পদ্ধতিতেই সরকারের পরিবর্তন হোক। পাঁচ বছর একটি নির্বাচিত সরকার নির্বাচনের মাধ্যমে আরেকটি নির্বাচিত সরকারকে ক্ষমতা হস্তান্তর করবে সেটি দেশের মানুষের যেমন প্রত্যাশা আমরাও সেটি চাই। নির্বাচনের মাধ্যমে মানুষের ভোটাধিকার নিশ্চিত হোক। এখন সেটি মানুষের মূল দাবি। মানুষের এই গণতান্ত্রিক দাবির সাথে জাতীয় পার্টিও একমত। জাতীয় পার্টি ঐক্যবদ্ধ আছে, ঐক্যবদ্ধ থাকবে, আগামীতে জাতীয় পার্টি রাজনীতিতে নিয়ামক শক্তি হবে রাজনৈতিক গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করবে।’ এসময় জাতীয় পার্টির বিভিন্ন স্তরের বেশ কয়েকজন নেতা উপস্থিত ছিলেন।






মন্তব্য চালু নেই