মেইন ম্যেনু

এলজিআরডি মন্ত্রীর নেতৃত্বে ড্যাপ পর্যালোচনা কমিটি

ঢাকাকে পরিকল্পিত ও বাসযোগ্য নগর হিসেবে গড়ে তোলার জন্য প্রণীত ডিটেইলড এরিয়া প্ল্যান (ড্যাপ) পর্যালোচনায় একটি কমিটি গঠন করা হয়েছে। এই কমিটির নেতৃত্বে রয়েছেন স্থানীয় সরকার পল্লী উন্নয়ন ও সমবায় মন্ত্রী ইঞ্জিনিয়ার খন্দকার মোশাররফ হোসেন। এই কমিটি ড্যাপ বাস্তবায়ন নিয়ে যেসব জটিলতা রয়েছে তা পর্যালোচনা করে সমাধানের ব্যবস্থা করবে।

গতকাল মঙ্গলবার ড্যাপ পর্যালোচনায় এই কমিটি গঠন করা হয় বলে এলজিআরডি মন্ত্রণালয় সূত্রে জানা গেছে।

এই কমিটির অন্য সদস্যরা হলেন গৃহায়ন ও গণপূর্তমন্ত্রী ইঞ্জিনিয়ার মোশাররফ হোসেন, সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের, পানিসম্পদ মন্ত্রী আনিসুল ইসলাম মাহমুদ, বন ও পরিবেশমন্ত্রী আনোয়ার হোসেন মঞ্জু ও নৌপরিবহন মন্ত্রী শাজাহান খান।

পর্যালোচনা কমিটির আহ্বায়ক এলজিআরডি মন্ত্রী বলেন, রাজধানী ঢাকাকে পরিকল্পিত ও বাসযোগ্য নগর হিসেবে গড়ে তোলার জন্য ড্যাপ প্রণয়ন করা হয়েছিল। কিন্তু নানা জটিলতার কারণে তা বাস্তবায়ন করা যাচ্ছে না। এজন্য নতুন এই কমিটি গঠন করা হয়েছে। কমিটি দ্রুততম সময়ের মধ্যে ড্যাপের যাবতীয় বিষয় পর্যালোচনা করে একটি সুপারিশ করবে। এর আলোকে ড্যাপ বাস্তবায়ন করা হবে।

রাজধানীতে অধিবাসীর সংখ্যা খুব দ্রুত বাড়ছে। এই বাড়ন্ত অধিবাসী ও নগর অবকাঠামোর হিসাব মাথায় রেখেই ঢাকা বিশদ অঞ্চল পরিকল্পনা (ড্যাপ) তৈরি করার কাজ শুরু হয়েছিল ২০০৪ সালে। ২০০৭ চূড়ান্তভাবে ড্যাপের প্রজ্ঞাপন জারি করে তৎকালীন সরকার। শেষ পর্যন্ত ২০০৮ সালের নির্বাচনে মহাজোট সরকার ক্ষমতায় আসার পর ড্যাপ প্রণয়ন ত্বরান্বিত করার পদক্ষেপ নেওয়া হয়। এ জন্য দেশের খ্যাতিমান স্থপতি, পরিবেশবিদ ও নগরবিদদের সমন্বয়ে একটি কমিটি করা হয়। কমিটিতে বিভিন্ন বিশ্ববিদ্যালয়ের নগর ও অঞ্চল পরিকল্পনা এবং স্থাপত্যকলা বিভাগের তরুণ শিক্ষার্থীরা অনেকটা স্বেচ্ছাশ্রমের ভিত্তিতে পুরো ঢাকা সমীক্ষা করেন। এরপর গণশুনানির মাধ্যমে কমিটি তিনবার পর্যালোচনা ও সংশোধনের পর ড্যাপের রূপরেখা চূড়ান্ত করে। কিন্তু নানা জটিলতায় আজও বাস্তবায়ন হয়নি ড্যাপ। জটিলতা কাটিয়ে নতুন ঢাকা গড়ে তোলার লক্ষ্যেই ড্যাপ পর্যালোচনা কমিটি গঠন করেছে সরকার।






মন্তব্য চালু নেই