মেইন ম্যেনু

এসআই মাসুদের বিরুদ্ধে মামলা নেয়ার নির্দেশ

পুলিশি নির্যাতনের শিকার বাংলাদেশ ব্যাংক কর্মকর্তা গোলাম রাব্বি নতুন করে মামলা করলে তা গ্রহণের নির্দেশ দিয়েছেন আপিল বিভাগ। রাব্বির মামলা সংশ্লিষ্ট থানা অথবা চিফ মেট্রোপলিটন আদালতকে গ্রহণ করতে বলা হয়েছে।

বৃহস্পতিবার প্রধান বিচারপতি সুরেন্দ্র কুমার সিনহার নেতৃত্বধীন চার বিচারপতির আপিল বেঞ্চ এ আদেশ দেন।

আদালতে রাব্বির পক্ষে ছিলেন ব্যারিস্টার মাহাবুব উদ্দিন খোকন। রাষ্ট্রপক্ষে ছিলেন অ্যাটর্নি জেনারেল মাহাবুবে আলম।

গত ২১ জানুয়ারি রাষ্ট্রপক্ষের আবেদনের প্রেক্ষিতে সুপ্রিমকোর্টের চেম্বার বিচারপতি হাসান ফয়েজ সিদ্দিকীর আদালত মামলা গ্রহণ করতে হাইকোর্টের আদেশে ২৫ জানুয়ারি পর্যন্ত স্থগিতাদেশ দেন।

গত ১৮ জানুয়ারি এসআই মাসুদ শিকদারের বিরুদ্ধে রাব্বির অভিযোগ এজাহার হিসেবে গ্রহণ করতে মোহাম্মদপুর থানার ওসিকে নির্দেশ দেন হাইকোর্ট। পরে রাষ্ট্রপক্ষের এক আবেদনের পরিপ্রেক্ষিতে ওই আদেশ ২১ জানুয়ারি স্থগিত করেন আপিল বিভাগরে চেম্বার জজ আদালত। একই সঙ্গে মামলাটি শুনানির জন্য পূর্ণাঙ্গ বেঞ্চে পাঠানো হয়।

এদিকে হাইকোর্টের আদেশের ওপর দেওয়া স্থগিতাদেশ প্রত্যাহার চেয়ে আবেদন করেন রাব্বির আইনজীবী। আজ ওই আবেদনের ওপর শুনানি হয়।

১৭ জানুয়ারি রাব্বিকে নির্যাতনের ঘটনার বিচার বিভাগীয় তদন্ত ও তিন কোটি টাকা ক্ষতিপূরণ চেয়ে হাইকোর্টে রিট আবেদন করা হয়। আইনজীবী এহসানুর রহমান, জুলফিকার আলী জুনু ও রাব্বির বন্ধু সাংবাদিক জাহিদ হাসান এ আবেদন করেন।

রিট আবেদনে, গোলাম রাব্বিকে নির্যা্তন কেনো অবৈধ ঘোষণা করা হবে না, রাব্বির অভিযোগ এজাহার হিসেবে নেওয়া এবং এসআই মাসুদ শিকদারকে কেনো গ্রেফতার করা হবে না তা জানতে চেয়ে রুল জারির আর্জি জানানো হয়।

প্রসঙ্গত, গত ৯ জানুয়ারি রাতে মোহাম্মদপুর থানার আসাদগেট এলাকায় রাব্বিকে পুলিশ নির্যাতন করে। এরপর পাঁচ লাখ টাকা চাঁদা চেয়ে তাকে ক্রসফায়ারে হত্যার হুমকিও দেওয়া হয়। ঘটনার পরদিন রাব্বি থানায় একটি অভিযোগ দিলে এসআই মাসুদকে প্রত্যাহার করে নিয়ে অভিযোগের তদন্ত শুরু করেন ওই এলাকার সহকারী কমিশনার হাফিজ আল ফারুক। তদন্তে প্রাথমিক প্রমাণ পাওয়ায় মাসুদকে সাময়িক বরখাস্ত করা হয়। এ নিয়ে পুলিশ সদর দপ্তরে একটি উচ্চপর্যায়ের কমিটিও গঠন করা হয়।






মন্তব্য চালু নেই