মেইন ম্যেনু

এ বছরের দামি ২০ প্রযুক্তি ব্র্যান্ড

বিশ্বে সবচেয়ে দ্রুত যে সেক্টরগুলো এগিয়ে যাচ্ছে, তার মধ্যে অন্যতম হচ্ছে প্রযুক্তি সেক্টর। ২০১৫ সালের শেষের দিকে চলে এসেছি আমরা, তাই এখন সময় হয়েছে বছর জুড়ে যা কিছু আধিপত্য সৃষ্টিকারী বিষয়গুলো ফিরে দেখার।

প্রযুক্তি প্রতিষ্ঠানগুলো প্রতিবছরই আরো বেশি উন্নত সেবা নিয়ে হাজির হচ্ছে। এ বছরের সবচেয়ে দামী সেরা ২০ প্রযুক্তি ব্র্যান্ড তুলে ধরা হলো এ প্রতিবেদনে। ২০১৫ সালের সবচেয়ে বড় এই ২০ প্রযুক্তি ব্র্যান্ড প্রযুক্তি বিশ্ব শাসন করার পাশাপাশি বিশ্ব ব্যবসা খাতেও রাজত্ব করেছে।

অ্যাপল

ব্র্যান্ড ভ্যালু (২০১৫): ১৭০.২৭৬ বিলিয়ন ডলার।

গ্লোবাল র‌্যাংক (২০১৫): ১।

ব্র্যান্ড ভ্যালু (২০১৪): ১১৮.৮৬৩ বিলিয়ন ডলার।

গ্লোবাল র‌্যাংক (২০১৪): ১।

গুগল

ব্র্যান্ড ভ্যালু (২০১৫): ১২০.৩১৪ বিলিয়ন ডলার।

গ্লোবাল র‌্যাংক (২০১৫): ২।

ব্র্যান্ড ভ্যালু (২০১৪): ১০৭.৪৩৯ বিলিয়ন ডলার।

গ্লোবাল র‌্যাংক (২০১৪): ২।

মাইক্রোসফট

ব্র্যান্ড ভ্যালু (২০১৫): ৬৭.৬৭ বিলিয়ন ডলার।

গ্লোবাল র‌্যাংক (২০১৫): ৪।

ব্র্যান্ড ভ্যালু (২০১৪): ৬১.১৫৪ বিলিয়ন ডলার।

গ্লোবাল র‌্যাংক (২০১৪): ৫।

আইবিএম

ব্র্যান্ড ভ্যালু (২০১৫): ৬৫.০৯৫ বিলিয়ন ডলার।

গ্লোবাল র‌্যাংক (২০১৫): ৫।

ব্র্যান্ড ভ্যালু (২০১৪): ৭২.২৪৪.১৫৪ বিলিয়ন ডলার।

গ্লোবাল র‌্যাংক (২০১৪): ৪।

স্যামসাং

ব্র্যান্ড ভ্যালু (২০১৫): ৪৫.২৯৭ বিলিয়ন ডলার।

গ্লোবাল র‌্যাংক (২০১৫): ৭।

ব্র্যান্ড ভ্যালু (২০১৪): ৪৫.৪৬২ বিলিয়ন ডলার।

গ্লোবাল র‌্যাংক (২০১৪): ৭।

অ্যামাজন

ব্র্যান্ড ভ্যালু (২০১৫): ৩৭.৯৪৮ বিলিয়ন ডলার।

গ্লোবাল র‌্যাংক (২০১৫): ১০।

ব্র্যান্ড ভ্যালু (২০১৪): ২৯.৪৭৮ বিলিয়ন ডলার।

গ্লোবাল র‌্যাংক (২০১৪): ১৫।

ইন্টেল

ব্র্যান্ড ভ্যালু (২০১৫): ৩৫.৪১৫ বিলিয়ন ডলার।

গ্লোবাল র‌্যাংক (২০১৫): ১৪।

ব্র্যান্ড ভ্যালু (২০১৪): ১৩.১৫৩ বিলিয়ন ডলার।

গ্লোবাল র‌্যাংক (২০১৪): ১২।

সিসকো

ব্র্যান্ড ভ্যালু (২০১৫): ২৯.৮৫৪ বিলিয়ন ডলার।

গ্লোবাল র‌্যাংক (২০১৫): ১৫।

ব্র্যান্ড ভ্যালু (২০১৪): ৩০.৯৩৬ বিলিয়ন ডলার।

গ্লোবাল র‌্যাংক (২০১৪): ১৪।

ওরাকল

ব্র্যান্ড ভ্যালু (২০১৫): ২৭.২৮৩ বিলিয়ন ডলার।

গ্লোবাল র‌্যাংক (২০১৫): ১৬।

ব্র্যান্ড ভ্যালু (২০১৪): ২৫.৯৮০ বিলিয়ন ডলার।

গ্লোবাল র‌্যাংক (২০১৪): ১৬।

এইচপি

ব্র্যান্ড ভ্যালু (২০১৫): ২৩.০৫৬ বিলিয়ন ডলার।

গ্লোবাল র‌্যাংক (২০১৫): ১৮।

ব্র্যান্ড ভ্যালু (২০১৪): ২৩.৭৫৮ বিলিয়ন ডলার।

গ্লোবাল র‌্যাংক (২০১৪): ১৬।

ফেসবুক

ব্র্যান্ড ভ্যালু (২০১৫): ২২.০২৯ বিলিয়ন ডলার।

গ্লোবাল র‌্যাংক (২০১৫): ২৩।

ব্র্যান্ড ভ্যালু (২০১৪): ১৪.৩৪৯ বিলিয়ন ডলার।

গ্লোবাল র‌্যাংক (২০১৪): ২৯।

স্যাপ

ব্র্যান্ড ভ্যালু (২০১৫): ১৮.৭৬৮ বিলিয়ন ডলার।

গ্লোবাল র‌্যাংক (২০১৫): ২৬।

ব্র্যান্ড ভ্যালু (২০১৪): ১৭.৩৪০ বিলিয়ন ডলার।

গ্লোবাল র‌্যাংক (২০১৪): ২৫।

ইবে

ব্র্যান্ড ভ্যালু (২০১৫): ১৩.৯৪০ বিলিয়ন ডলার।

গ্লোবাল র‌্যাংক (২০১৫): ৩২।

ব্র্যান্ড ভ্যালু (২০১৪): ১৪.৩৫৮ বিলিয়ন ডলার।

গ্লোবাল র‌্যাংক (২০১৪): ২৮।

ক্যানন

ব্র্যান্ড ভ্যালু (২০১৫): ১১.২৭৮ বিলিয়ন ডলার।

গ্লোবাল র‌্যাংক (২০১৫): ৪০।

ব্র্যান্ড ভ্যালু (২০১৪): ১১.৭০২ বিলিয়ন ডলার।

গ্লোবাল র‌্যাংক (২০১৪): ৩৭।

অ্যাকসেঞ্চার

ব্র্যান্ড ভ্যালু (২০১৫): ১০.৮ বিলিয়ন ডলার।

গ্লোবাল র‌্যাংক (২০১৫): ৪২।

ব্র্যান্ড ভ্যালু (২০১৪): ৯.৮৮২ বিলিয়ন ডলার।

গ্লোবাল র‌্যাংক (২০১৪): ৪৪।

সনি

ব্র্যান্ড ভ্যালু (২০১৫): ৭.৭০২ বিলিয়ন ডলার।

গ্লোবাল র‌্যাংক (২০১৫): ৫৮।

ব্র্যান্ড ভ্যালু (২০১৪): ৮.১৩৩ বিলিয়ন ডলার।

গ্লোবাল র‌্যাংক (২০১৪): ৫২।

প্যানাসনিক

ব্র্যান্ড ভ্যালু (২০১৫): ৬.৪৩৬ বিলিয়ন ডলার।

গ্লোবাল র‌্যাংক (২০১৫): ৬৫।

ব্র্যান্ড ভ্যালু (২০১৪): ৬.৩০৩ বিলিয়ন ডলার।

গ্লোবাল র‌্যাংক (২০১৪): ৬৪।

অ্যাডোব

ব্র্যান্ড ভ্যালু (২০১৫): ৬.২৫৭ বিলিয়ন ডলার।

গ্লোবাল র‌্যাংক (২০১৫): ৬৮।

ব্র্যান্ড ভ্যালু (২০১৪): ৫.৩৩ বিলিয়ন ডলার।

গ্লোবাল র‌্যাংক (২০১৪): ৭৭।

জেরক্স

ব্র্যান্ড ভ্যালু (২০১৫): ৬.০৩৩ বিলিয়ন ডলার।

গ্লোবাল র‌্যাংক (২০১৫): ৭১।

ব্র্যান্ড ভ্যালু (২০১৪): ৬.৬৪১ বিলিয়ন ডলার।

গ্লোবাল র‌্যাংক (২০১৪): ৬২।

হুয়াউয়ে

ব্র্যান্ড ভ্যালু (২০১৫): ৪.৯৫২ বিলিয়ন ডলার।

গ্লোবাল র‌্যাংক (২০১৫): ৮৮।

ব্র্যান্ড ভ্যালু (২০১৪): ৪.৩১৩ বিলিয়ন ডলার।

গ্লোবাল র‌্যাংক (২০১৪): ৯৪।

তালিকাটি নেওয়া হয়েছে ২০১৫ সালের বিশ্বের সবচেয়ে দামী ব্র্যান্ডগুলো নিয়ে ব্র্যান্ড কনসালটেন্সি প্রতিষ্ঠান ইন্টারব্র্যান্ডের প্রকাশিত প্রতিবেদন থেকে।

তথ্যসূত্র: টাইমস অব ইন্ডিয়া






মন্তব্য চালু নেই