মেইন ম্যেনু

ওবামার বিরুদ্ধে মার্কিন সেনার মামলা

ইরাক ও সিরিয়ায় জঙ্গিগোষ্ঠী ইসলামিক স্টেটের (আইএস) বিরুদ্ধে যুদ্ধের বৈধতাকে চ্যালেঞ্জ করে প্রেসিডেন্ট বারাক ওবামার বিরুদ্ধে মামলা করেছেন এক মার্কিন সেনা কর্মকর্তা।

বুধবার ওয়াশিংটন ডিসট্রিক্ট কোর্টে করা মামলায় তিনি অভিযোগ করেন, কংগ্রেসের যথাযথ অনুমোদন না নিয়েই আইএসের বিরুদ্ধে সেনা পাঠিয়ে যুদ্ধ শুরু করেছেন ওবামা। তাই এ যুদ্ধ অবৈধ।

মার্কিন সেনাবাহিনীর ২৮ বছর বয়সী সেনা কর্মকর্তা ক্যাপ্টেন নাথান মিশেল স্মিথ মামলাটি করেন বলে জানিয়েছে ‘দ্য নিউইয়র্ক টাইমস’।

কুয়েতে গোয়েন্দা কর্মকর্তার দায়িত্বে নিয়োজিত স্মিথ জানান, তিনি জঙ্গিগোষ্ঠী আইএসের বিরুদ্ধে যুদ্ধের শক্তিশালী সমর্থক। কিন্তু এ যুদ্ধ ‘সংবিধান পরিপস্থী। তা জানতেই এ মামলা করেন তিনি।

মামলার অভিযোগপত্রে তিনি বলেন, আমার শপথের সম্মান রক্ষার জন্য আমি চাই আদালত প্রেসিডেন্টকে জিজ্ঞেস করুক, ‌‘যুদ্ধক্ষমতা আইনের’ সঠিক অনুমোদন কংগ্রেসের কাছে থেকে নেয়া হয়েছিল কি না? তিনি যে আইনের মাধ্যমে ইরাক ‍ও সিরিয়ায় আইএসের বিরুদ্ধে যুদ্ধ শুরু করেছেন।

মঙ্গলবার আইএসের হাতে তৃতীয় মার্কিন সেনার মৃত্যুর পর প্রেসিডেন্ট ওবামা সিরিয়ার বিদ্রোহী নিয়ন্ত্রিত এলাকায় মার্কিন সেনাসদস্য ও অভিযান বাড়ানোর ঘোষণা দেন। এর পরদিনই স্মিথ এ মামলা করলেন।

ওবামা বারবারই বলে আসছেন, নিয়ম মেনেই আইএসের বিরুদ্ধে যুদ্ধ শুরুর অনুমতি দেয়া হয়েছে। ৯/১১ পরবর্তী সময়ে সন্ত্রাসবাদবিরোধী যুদ্ধ শুরুর যে বিধান কংগ্রেস প্রেসিডেন্টকে দিয়েছে তা মেনেই তিনি ইরাক ও সিরিয়ায় আইএস দমনের অনুমতি দিয়েছেন।

এ যুক্তি খারিজ করে দিয়ে অনেকেই বলেছেন, আফগানিস্তানে লুকিয়ে থাকা আল কায়দা দমনে যে বিধান করা হয়েছিল, তার সীমা বাড়িয়ে ওবামা ‘অসাংবিধানিকভাবে’ এক সংগঠনের বিরুদ্ধে যুদ্ধ করছেন, ২০০১ সালে যার জন্মই হয়নি।






মন্তব্য চালু নেই