মেইন ম্যেনু

ওসিসহ ৩ পুলিশের বিরুদ্ধে স্বেচ্ছাসেবক লীগের মামলা

সিলেট কোতোয়ালি থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) সোহেল আহমদসহ তিন পুলিশ সদস্যের বিরুদ্ধে মামলা করেছেন স্বেচ্ছাসেবক লীগ নেতা মনজুরুল ইসলাম মজনু।

সোমবার দুপুরে সিলেট মহানগর চিফ মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে মামলাটি দায়ের করেছেন তিনি।

মামলার বাকি আসামিরা হলেন- কোতোয়ালি থানার সেকন্ড অফিসার ফয়েজ আহমদ ও নগরীর লামাবাজার পুলিশ ফাঁড়ির ইনচার্জ এসআই আবদুল কাদির। এছাড়াও অজ্ঞাত আরো ৫-৭ জন পুলিশ সোর্সকেও আসামি করা হয়েছে।

মামলার বাদি মনজুরুল ইসলাম মজনু নগরীরা রায়নগর রাজবাড়ি বসুন্ধরা-৪৭ নং বাসার আবদুল ওয়াহিদের ছেলে।

মামলার অভিযোগে বাদি উল্লেখ করেছেন, তিনি জেলা স্বেচ্ছাসেবক লীগের রাজনীতির সাথে যুক্ত। গত শনিবার তিনি রাজনৈতিক সভার জন্য জেলা স্বেচ্ছাসেবক লীগের সভাপতি আফসার আজিজের বাসায় যান। সভা শেষে রাত সাড়ে ৯টার দিকে স্বেচ্ছাসেবক লীগ কর্মী স্বপন দেব, জুনেদ, জাহেদুল, সাজ্জাদসহ নগরীর লালাদিঘীর পূর্বপারে পৌঁছামাত্র কোতোয়ালি থানার ওসি সোহেলের নির্দেশে মামলার অন্যান্য আসামিরা তাদের উপর হামলা চালায়।

তিনি আরো অভিযোগ করেন, এ সময় ওসি সোহেল স্বপন দেবকে ধরে ফেলেন। স্বপন দেব নিজেকে স্বেচ্ছাসেবক লীগ কর্মী পরিচয় দিয়ে বাসায় যেতে চাইলে ওসি ১ লাখ টাকা দাবি করেন। টাকা দিতে অপরাগতা প্রকাশ করলে স্বপন দেব আঘাত করেন ওসি সোহেল। জখম হয়ে মাটিতে লুটিয়ে পড়েন স্বপন। পরে ওসির সাথে থাকা সেকেন্ড অফিসার ফয়েজ ও এসআই আবদুল কাদির লাঠি দিয়ে স্বপনকে এলোপাতাড়ি পেটাতে থাকেন।

বাদি মনজুরুল ইসলাম আরো উল্লেখ করেছেন, এসময় সাথে থাকা অন্যদের নিয়ে তিনি অনুনয় জানালে আসামিরা তাদেরও লাঠিপেটা করেন।

কোতোয়ালি থানার ওসি সোহেল ও মামলার অন্যান্য আসামিদের সাথে সিলেটের বিভিন্ন অপরাধী ও জঙ্গি গোষ্ঠীর কানেকশন রয়েছে বলেও বাদী মনজুরুল ইসলাম অভিযোগে উল্লেখ করেছেন।

বাদিপক্ষের আইনজীবী গোলাম ইয়াহইয়া চৌধুরী সুহেল জানান, মহানগর চিফ মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট আদালতের বিচারক সাইফুজ্জামান হিরো অভিযোগ আমলে নিয়ে জুডিশিয়াল তদন্তের জন্য এডিশনাল চিফ মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেটকে নির্দেশ প্রদান করেছেন।

আদালতে বাদিপক্ষে আইনজীবীদের মধ্যে অ্যাডভোকেট আলাউদ্দিন ও প্রবাল চৌধুরী পুঞ্জনও ছিলেন।






মন্তব্য চালু নেই