মেইন ম্যেনু

ওয়ারীতে মেসে আগুন দিয়ে তালা, দগ্ধ ৩

রাজধানীর ওয়ারীর নারিন্দায় একটি মেসে দুর্বৃত্তের দেওয়া আগুনে তিনজন ঝলসে গেছেন। তারা হলেন সুমন (৪০), সাকিব (৩৫) ও শহীদুল ইসলাম (১৬)। বৃহস্পতিবার ভোরে নারিন্দার হাজির মেসে এ ঘটনা ঘটে।

অগ্নিদগ্ধদের উদ্ধার করে ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালের বার্ন ইউনিটে ভর্তি করা হয়। অবস্থা আশঙ্কাজনক হওয়ায় পরে তাদের আইসিইউতে স্থানান্তর করা হয়।

ওয়ারী থানার এসআই মিজানুর রহমান বিষয়টি নিশ্চিত করে জানান, বৃহস্পতিবার ভোর ৪টার দিকে কে বা ওই মেসের কক্ষের ভেতর আগুন দিয়ে বাইরে থেকে তালা মেরে পালিয়ে যায়। তাদের আর্তচিৎকার শুনে আশপাশের লোকজনের সহায়তায় তালা ভেঙে সুমন, সাকিব ও শহীদুলকে উদ্ধার করা হয়।

এসআই আরো জানান, ঘটনার সঙ্গে জড়িতদের আইনের আওতায় আনা হবে। দগ্ধরা একটু সুস্থ হলেই তাদের কাছ থেকে বর্ণনা শুনে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়া হবে। দগ্ধরা সবাই ধোলাইখাল এলাকায় মোটর পার্টস মেরামতের কাজ করতেন।

এদিকে, দগ্ধ সুমন জানান, সোহাগ ও রাজীব নামের দুজন শত্রুতার জেরে এ কাজ করে থাকতে পারে। তাদের কাছে সুমন টাকা পান। তারাও একসময় সুমনের কাছে কাজ শিখতেন। এখন তারা মাদকাসক্ত। মাঝেমধ্যেই তারা সুমনের কাছে চাঁদা দাবি করতেন। কিছুদিন আগে সোহাগ ও রাজীবকে পুলিশ ধরে নিয়ে গিয়েছিল। পরে সুমন তাদের ছাড়িয়ে আনেন। আর এখন তারাই সুমনকে আগুন দিয়ে পুড়িয়ে মারতে চেয়েছেন।

ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালের বার্ন ইউনিটের আবাসিক সার্জন পার্থ শঙ্কর পাল জানান, দগ্ধদের শ্বাসনালিসহ শরীরের বিভিন্ন অংশ পুড়ে গেছে। সবার অবস্থাই আশঙ্কাজনক। তাদের আইসিইউতে রাখা হয়েছে। সুমনের শ্বাসনালিসহ ৮৫ শতাংশ, সাকিবের শরীরের ৩২ শতাংশ আর শহীদুলের ১৮ শতাংশ শরীর পুড়ে গেছে। সিআইডির ক্রাইম দল বার্ন ইউনিট পরিদর্শন করেছে।






মন্তব্য চালু নেই