মেইন ম্যেনু

কক্সবাজারের উখিয়ায় সন্ত্রাসী হামলায় মহিলা মেম্বার আহত

কক্সবাজারের উখিয়ার ঘুমধুমে সত ছেলের সন্ত্রাসী হামলায় সংরক্ষিত মহিলা মেম্বার গুরুতর আহত হয়েছে। ঘটনাটি ঘটেছে গত ২৭ নভেম্বর শুক্রবার রাত ৮ টার দিকে বেতবনিয়া এলাকার নিজ বাড়ীর সামনে।
জানা যায়, নাইক্ষ্যংছড়ি উপজেলার ঘুমধুম ইউনিয়নের ৪,৫,৬ নং ওয়ার্ডের সংরক্ষিত মহিলা মেম্বার খালেদা বেগমের সত ছেলে আব্দুল আলিমের পুত্র সীমান্তের ইয়াবা চোরাচালানকারীদের অন্যতম হোতা, শীর্ষ সন্ত্রাসী, এলাকার ত্রাস নামে খ্যাত ও শিবির ক্যাডার মনিরুল আলাম প্রকাশ: ইয়াবা মনির তার স্ত্রী ছমিরা আক্তার ণীল নকশা তৈরি করে সত মায়ের সম্পক্তি অবৈধ ভাবে দখল বা মালিক হওয়ার জন্য সুকৌশলে জাতীয় পরিচয় পত্রের মধ্যে সন্ত্রাসী মনিরের মৃত মায়ের নাম সংশোধন করে সত মার নামটি তার জাতীয় পরিচয় পত্রে অর্ন্তভুক্ত করেন। যার আইডি নং ১৯৯৩০৩১৭৩৫৭০০০০৬৭।
দীর্ঘ ২ বছর পর স্থানীয় ইউপি সদস্য খালেদা বেগম জালজালিয়াতির ঘটনাটি জানার পর সত ছেলের আইডি কার্ডটি মাতার নাম সংশোধনের জন্য জেলা নির্বাচন কমিশন অফিসে প্রেরণ করার খবর পাওয়ার পর থেকে স্থানীয় ইউপি সদস্য কামাল ও সন্ত্রাসী সত পুত্রের শাশুর ছগির আহম্মদের ইন্ধনে তার সত মা খালেদা বেগম ও সত বোন নুশরাত জাহান নিহাকে দফায় দফায় হামলা চালিয়ে গুরুতর আহত করছে বলে জানা গেছে।
এ সময় আহতের শৌর চিৎকারে স্থানীয় ইউপি সদস্য আব্দুস শুক্কুর ও পার্শ্ববর্তী লোকজন এগিয়ে এসে অস্ত্রধারীদের কবল থেকে তাদেরকে উদ্ধার করে উখিয়া হাসপাতালে ভর্তি করে। কর্তব্যরত চিকিৎসক বলেন, হামলায় আহত ইউপি সদস্য এখনো সংখ্যামুক্ত হয়নি বলে তিনি জানান। ইউপি সদস্য খালেদা বেগমের কাছ থেকে জানতে চাইলে তিনি হামলাকারীদের বিরুদ্ধে মামলার প্রস্তুতি নিচ্ছে বলে জানান। ঘুমধুম পুলিশ ফাঁড়ির আইসি জাকির হোসেন ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে বলেন, এজাহার বা অভিযোগ হাতে পেলেই সন্ত্রাসীদের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে বলে তিনি জানান।






মন্তব্য চালু নেই