মেইন ম্যেনু

উখিয়া ইউএনও’র পরিদর্শন

কক্সবাজারের রেজু খালের ভাঙ্গনে মসজিদ, স্কুল : আতংকে শতাধিক পরিবার

উখিয়ায় খরস্রোতা রেজু খালের গতিপথ পরিবর্তন হয়ে লোকালয়ে প্রবহমানের ধারাবাহিকতায় হুমকির মুখে পড়েছে পাইন্যাশিয়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় ও জামে মসজিদ। আসন্ন বর্ষা মৌসুমে বড়–য়াপাড়া গ্রামের শতাধিক পরিবার নদীগর্ভে বিলীন হয়ে যেতে পারে। ৬৫ মিটার দীর্ঘ ফুটব্রিজটি ধ্বসে পড়লে ৫ গ্রামের ৮ হাজার মানুষের যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন হয়ে যাবে। গতকাল শনিবার সকালে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোঃ মাঈন উদ্দিন রেজু খালের ভাঙ্গন পরিদর্শন করতে গেলে স্থানীয় লোকজন এসব সংকট সমস্যার কথা তুলে ধরেন।
স্থানীয় চেয়ারম্যানের আবেদনের প্রেক্ষিতে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোঃ মাঈন উদ্দিন সহ উপজেলা প্রশাসনের কর্মকর্তারা গতকাল শনিবার সকালে রেজু খালের ভাঙ্গন কবলিত এলাকা পরিদর্শনে আসলে শত শত নারী-পুরুষ খালের পাড়ে সমবেত হয়ে তাদের দুঃখ দুর্দশার চিত্র তুলে ধরেন। এ সময় খালের ভাঙ্গনে গৃহহীন শামশুন্নাহার (৩৮) জানায়, রেজু খালের ভাঙ্গনে একমাত্র বসত বাড়ি নদীগর্ভে বিলীন হয়ে যাওয়ার ফলে স্বামী তাদের ছেড়ে উধাও হয়ে যায়। একমাত্র কলেজ পড়–য়া মেয়ে রিপা আক্তার (১৬) কে নিয়ে পার্শ্ববর্তী বাড়ির আঙ্গিনায় কোন রকম দিনযাপন করতে হচ্ছে। সে আরো জানায়, আশ্রয়দাতা পরিবারের বাড়িটি নদী ভাঙ্গনে চলে গেলে তাদের আর কোথাও থাকার জায়গা থাকবে না। ঝুঁকিপূর্ণ বড়–য়া পাড়া গ্রামের সমাজপতি বাবু দীনেশ বড়–য়া জানায়, রেজু খালের গতিপথ পরিবর্তনের ফলে ভাঙ্গন ভয়াবহ আকার ধারণ করেছে গত দুই বছর ধরে। আগামী বর্ষা মৌসুমে ভাঙ্গন প্রতিরোধে প্রশাসন ব্যবস্থা না নিলে ৬৫ মিটার ফুটব্রীজ সহ বৌদ্ধ ধর্মাবলম্বী অধ্যুষিত বড়–য়া পাড়া গ্রামের শতাধিক পরিবারের বসত বাড়ি নদীগর্ভে বিলীন হয়ে নিঃস্ব হয়ে পড়বে। ইউএনও’র দৃষ্টি আকর্ষণ করে স্থানীয় আওয়ামীলীগ নেতা উদয় বড়–য়া জানায়, খালের ভাঙ্গন রোধে সিসি ব্লক ও স্পার্ক নির্মাণ অতীব জরুরী হয়ে পড়েছে। পাশাপাশি ফুটব্রীজের পশ্চিম পার্শ্বে গাইডওয়াল নির্মাণ করা না হলে ব্রিজটি যে কোন সময়ে ধ্বসে পড়ে বড়–য়া পাড়া সহ ৫ গ্রামের প্রায় ৮ হাজার মানুষকে উপজেলা সদরের সাথে যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন অবস্থায় দিনযাপন করতে হবে।
এ সময় উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোঃ মাঈন উদ্দিন রেজু খালের ভাঙ্গন প্রতিরোধ সহ ফুটব্রিজ রক্ষায় প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য উপজেলা সহকারী প্রকৌশলী সোহরাব হোসেনকে নির্দেশ দিয়ে যত দ্রুত সম্ভব একটি প্রাক্কলন তৈরির পরামর্শ দেন। গ্রামবাসী জানায়, সম্প্রতি উখিয়া-টেকনাফ আসনের সংসদ সদস্য আবদুর রহমান বদি রেজু খালের ভাঙ্গন পরিদর্শন করে গৃহহীন ২০ পরিবারকে আর্থিক সহায়তা প্রদান করেন। পরিদর্শনকালে স্থানীয় চেয়ারম্যান আনোয়ার হোসেন, সমবায় কর্মকর্তা কবির আহমদ, প্রবাসী জাহাঙ্গীর আলম চৌধুরী, সম্ভাব্য মেম্বার প্রার্থী মনিরুল ইসলাম মনির, ডাঃ শংকর বড়–য়া, আলহাজ্ব শফিকুর রহমান, ঠিকাদার মিলন বড়–য়া প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।






মন্তব্য চালু নেই