মেইন ম্যেনু

কণ্ঠ নকলবাজ সেই প্রতারক গ্রেপ্তার

প্রবাসী ছেলে দেশে থাকা বৃদ্ধ বাবার কাছে পাঠিয়েছিলেন ২৫ হাজার টাকা। মুঠোফোনে ছেলের কণ্ঠ নকল করে সেই টাকা হাতিয়ে নেয় প্রতারক। সেই ঘটনার প্রায় দেড় মাস ওই প্রতারককে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ।

সেই টাকা উদ্ধার করে মঙ্গবার বিকেলে বৃদ্ধকে তাঁর টাকা ফিরিয়ে দিয়েছেন পুলিশ সুপার আমেনা বেগম।

আটক ‘প্রতারকের’ নাম দেলোয়ার হোসেন (৪০)। তার বাড়ি কুমিল্লার হোমনা উপজেলার শ্রীপুর গ্রামে। আর প্রতারণার শিকার বৃদ্ধের নাম জসিম উদ্দিন। তিনি নরসিংদীর শিবপুর উপজেলার উত্তর সাধারচর গ্রামের বাসিন্দা।

বৃদ্ধ জসিম উদ্দিন সাংবাদিকদের জানান, তাঁর একমাত্র ছেলে করিম উদ্দিন মালয়েশিয়া থাকেন। গত ৭ আগস্ট ছেলে ব্যাংকের মাধ্যমে তাঁর কাছে ২৫ হাজার টাকা পাঠান। নরসিংদীর একটি ব্যাংক থেকে টাকা তুলে বাড়িতে ফেরার সময় তাঁর মুঠোফোনে একটি কল আসে। তিনি রিসিভ করতেই এক ব্যক্তি তাঁর ছেলের কণ্ঠের মতো কথা বলেন। মুঠোফোনে বলা হয়, তার এক বন্ধুর জরুরি টাকা প্রয়োজন। সেই টাকাগুলো তার এক বন্ধু নিতে আসবে। তিনি যেন টাকাগুলো দিয়ে দেন। তারই পরিপ্রেক্ষিতে নরসিংদীর মোসলেহ উদ্দিন ভূঞা স্টেডিয়ামের সামনে থেকে এক ব্যক্তি নিজেকে ছেলের বন্ধু পরিচয় দিয়ে বিদেশ থেকে পাঠানো ওই ২৫ হাজার টাকা নিয়ে যান। কিছুক্ষণ পর তাঁর ছেলে ফোন দিলে তিনি বুঝতে পারেন প্রতারিত হয়েছেন।

এরপর জসিম উদ্দিন বিষয়টি স্থানীয় শিবপুর থানা পুলিশ ও জেলা গোয়েন্দা পুলিশকে জানান। এরই পরিপ্রেক্ষিতে পুলিশ মোবাইল কলের সূত্র ধরে প্রতারক দেলোয়ার হোসেনকে চিহ্নিত করে। গত সোমবার গভীর রাতে জেলার পলাশ উপজেলার জিনারদী থেকে তাকে আটক করে গোয়েন্দা পুলিশ। আজ মঙ্গলবার বিকেলে উদ্ধার করা টাকা পুলিশ সুপার আমেনা বেগম বৃদ্ধ জসিম উদ্দিনের কাছে হস্তান্তর করেছেন।

জেলা গোয়েন্দা পুলিশের উপপরিদর্শক (এসআই) খোকন চন্দ্র সরকার বলেন, প্রতারক দেলোয়ার হোসেন কণ্ঠ নকল করে এ রকম অনেক নিরীহ লোক ও নারীকে টার্গেট করে টাকা হাতিয়ে নিয়েছে। তাকে আটকের কথা শুনে প্রতারিত অনেকে এসে তাদের প্রতারিত হওয়ার বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন। তার বিরুদ্ধে ওঠা অভিযোগগুলো পর্যালোচনা করে প্রয়োজনীয় আইনানুগ ব্যবস্থা নেওয়া হবে।






মন্তব্য চালু নেই