মেইন ম্যেনু

কনডম সংকটে চরম টেনশনে ভারতের মহারাষ্ট্র সরকার!

চরম টেনশনে ভারতের মহারাষ্ট্র প্রদেশের সরকার। সামনেই কুম্ভ মেলা। রীতিমতো ঘাম ছুটছে সরকারি কর্তাব্যক্তিদের। না, কুম্ভমেলার ভিড় নিয়ে চিন্তা নয়। সে ভিড় সামলানোর প্রশাসনিক চিন্তাও নয়। এ দুশ্চিন্তার কারণ হল, কন্ডোম। কুম্ভমেলার আগে বে-নজির ভাবে কন্ডোম অপর্যাপ্ত হয়ে পড়েছে নাসিকে। ফলে রীতিমতো উদ্বেগে মহারাষ্ট্র এইডস কন্ট্রোল সোসাইটি (MSAC)।

MSAC-র জেলা প্রোগ্রাম অফিসার যোগেশ পরদেশি জানিয়েছেন, নাসিকের বেশ কিছু সরকারি হাসপাতালে কন্ডোম প্রায় শেষের পথে। গ্রামীণ হাসপাতাল ও প্রাথমিক স্বাস্থ্যকেন্দ্রগুলিতেও কন্ডোম পাওয়াই যাচ্ছে না। এদিকে কুম্ভমেলায় ভিনরাজ্য ও বিদেশ থেকেও বহু মানুষ আসবেন। সেক্ষেত্রে কন্ডোমের চাহিদা সামাল দেওয়া যাবে কিনা, তা নিয়ে সংশয় রয়েছে। তাঁর কথায়, ‘শুক্রবার এ বিষয়ে একটি বৈঠক ডাকা হয়েছে। আরও কন্ডোমের জোগানের আবেদন জানানো হয়েছে।হেড অফিসকে।’

নাসিক জেলা প্রশাসন সূত্রের খবর, বর্তমানে মাত্র ৫০ হাজার কন্ডোম রয়েছে জেলা স্বাস্থ্য দপ্তরের কাছে। কুম্ভমেলার আগেই সেই স্টক ফুরিয়ে যাবে। নাসিক শহরে ২ হাজার মহিলা যৌনকর্মী, ৫৬০ জন সমকামী যৌনকর্মী ও ৭০ জন রূপান্তরকামী যৌনকর্মী রয়েছেন। MSAC-র অফিসাররা জানাচ্ছেন, আগামী ১৪ জুলাই থেকে কুম্ভমেলা শুরু হচ্ছে। কয়েক কোটি তীর্থযাত্রী ও লক্ষাধিক সাধু নাসিকে ভিড় জমাবেন।

এই মুহূর্তে কন্ডোমের যা স্টক, তাতে মেলায় সামাল দেওয়া অসম্ভব। গড় ধরলে দেখা যাচ্ছে, অন্তত ২৪ লাখ পিস কন্ডোম প্রয়োজন মেলার সময়। না-হলে এইডস-এর মতো মারণ রোগ ছড়ানোর আশঙ্কা থেকে যাচ্ছে।






মন্তব্য চালু নেই