মেইন ম্যেনু

কলকাতার মসজিদের রক্ষণাবেক্ষণে নিযুক্ত হিন্দুরা!

দেশজুড়ে রথযাত্রা এবং ঈদ প্রায় একইসঙ্গে পালিত হচ্ছে৷ পাঁপড়ি এবং বিরিয়ানি একইসঙ্গে খাওয়ার পরিকল্পনা করছেন সম্প্রীতিপ্রিয় মানুষ৷ জানাচ্ছেন একইসঙ্গে রথটানা এবং চাঁদ দেখার শুভেচ্ছা৷ সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতি যখন এতটাই মধুর তখন এমন আর একটি মধুর কাহিনী বোধহয় জানা যেতেই পারে৷

যখন অসহিষ্ণুতা প্রসঙ্গে গোটা ভারত উত্তাল তখনও ভারতে এমন এক মসজিদ রয়েছে যার রক্ষণাবেক্ষণ করে চলেছে হিন্দুরা৷ আরও অবাক হবেন জানলে এই মসজিদ কোথায় অবস্থিত৷ খোদ কলকাতাতেই রয়েছে সেই মসজিদ যার রক্ষণাবেক্ষণের দায়িত্বে রয়েছে হিন্দু ট্রাস্ট৷

জোড়াসাঁকোর মার্বেল প্যালেস মসজিদ যা বাঙালি বাবুর মসজিদ নামে খ্যাত তারই দেখভালের দায়িত্বে রয়েছে মল্লিক পরিবার৷ ১৮৩৫ সালে তৈরি এই মসজিদটির বয়স ১৮১ বছর৷ মল্লিক পরিবারের দেবোত্তর জমিতে তৈরি এই মসজিদটির রক্ষণাবেক্ষণ আজও করে চলেছেন মল্লিক পরিবারের ট্রাস্ট৷ সম্প্রতি আর্কিওলজি ডিপার্টমেন্ট থেকে এই মসজিদের সংস্কারের প্রস্তাব দেওয়া হলে তা গ্রহণ করা হয় এবং মসজিদের যাবতীয় কাজকর্মের দেখভাল হচ্ছে ট্রাস্টের টাকায়৷

প্রসঙ্গত, মল্লিক পরিবারের বিখ্যাত পুরুষ রাজেন মল্লিকের মা হীরামণি দাসী স্বপ্নে জগন্নাথ দেবের দর্শন পেয়েছিলেন৷ আর তার পরেই মল্লিকদের বাড়িতেই জগন্নাথ দেবের মন্দির প্রতিষ্ঠা হয়৷ প্রতিবার রথে ধুমধাম করে জগন্নাথ দেবের পুজা হয় সেই মন্দিরে৷ জানলে অবাক হবেন, জগন্নাথ মন্দিরের ঠিক উল্টোদিকেই বাঙালি বাবুর মসজিদ৷

প্রসঙ্গত, ভারতে বাঙালি বাবুর মসজিদই একমাত্র মসজিদ, যেটি হিন্দুদের দ্বারা পরিচালিত হয়৷ আর এই জোড়াসাঁকোতেই জগন্নাথ দেবের পুজো এবং ঈদের নামাজ প্রায় একসঙ্গেই পড়া হল৷






মন্তব্য চালু নেই