মেইন ম্যেনু

কলারোয়ার নিরাপদ আম উৎপাদন প্রকল্প পরিদর্শন

একরামুল কবীর, ষ্টাফ করেসপন্ডেন্ট, সাতক্ষীরা: সাতক্ষীরা জেলা কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তরের উপ-পরিচালক কৃষিবিদ কাজী আঃ মান্নান বলেছেন, সাতক্ষীরা জেলা থেকে গত বছর ইউরোপীয় ইউনিয়নে ২৩ মেট্রিক টন আম রপ্তানী হয়েছিল। আশাকরি এ বছর তার চেয়ে আরো বেশী পরিমান আম বিদেশে রপ্তানী হবে। তিনি বৃহস্পতিবার সকালে কলারোয়া উপজেলার ঝাপাঘাট গ্রামে সলিডারিডাড নেটওয়ার্ক এশিয়া’র সফল প্রকল্পের আওতায় নিরাপদ আম উৎপাদন প্রকল্প পরিদর্শন কালে এসব কথা বলেন।

তিনি আরো বলেন, গত বছর শুধুমাত্র সাতক্ষীরা সদর উপজেলা থেকে আম রপ্তানী করা হয়েছিল । এ বছর কলারোয়া দেবহাটা ও সাতক্ষীরা সদর উপজেলা থেকে আম রপ্তানী করা হবে। এ আম বিদেশে রপ্তনী হলে কৃষকেরা আর্থিক ভাবে লাভবান হবেন এবং এলাকার কৃষকেরা রপ্তানী যোগ্য আম উৎপাদনে আগ্রহী হবেন।

নিরাপদ আম উৎপাদন প্রকল্প পরিদর্শন কালে অন্যান্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন কৃষি সম্প্রাসরন অধিদপ্তরের জেলা ট্রেনিং কর্মকর্তা জি এম এ গফুর.কলারোয়া উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা মহাসীন আলী, সলিডারিডাড নেট ওয়ার্ক এশিয়ার হরটিকালচার স্পেশালিষ্ট ডঃ নাজমুন নাহার,উত্তরনের প্রজেক্ট ম্যানেজার ইকবাল হোসেন,সফল প্রকল্পের আম চাষী নুরুল ইসলাম প্রমূখ।

আম চাষী নুরুল ইসলাম এক প্রশ্নের জবাবে জানান, তিনি মোট ২৪ বিঘা জমিতে আম চাষ করেছেন। এর মধ্যে ১২ বিঘা জমিতে চাষ করছেন নিরাপদ আম। যা ইউরোপীয় ইউনিয়নে রপ্তানীর উপযোগী করে তোলা হচ্ছে। তিনি আ¤্রপালী, ন্যাংড়া, গোবিন্দভোগ, হিমসাগর সহ বিভিন্ন জাতের আম চাষ করেছেন।নুরুল ইসলাম আরো জানান, আমের বাগান ইতোমধ্যে ৪ লক্ষ ৭০ হাজার টাকায় বিক্রি হওয়ার দর উঠেছে। যদি ঐ দামে বিক্রি হয় তাহলে তার প্রায় ৪ লক্ষাধিক টাকা লাভ হবে।

তিনি আম চাষ করে বিদেশে রপ্তানী করতে পারবেন এ জন্য বেশ খুশি।






মন্তব্য চালু নেই