মেইন ম্যেনু

কলারোয়ায় নির্বাচনী বৈতরণী পেরুতে কোমড় বেঁধে নেমেছেন প্রার্থীরা

নির্বাচনের বৈতরণী পেরুতে কোমড় বেঁধে নেমেছেন কলারোয়া পৌর নির্বাচনের মেয়র ও কাউন্সিলর প্রার্থীরা।
রবিবার দু’জন কাউন্সিলর প্রার্থী ছাড়া দিনভর গুঞ্জন আর নানান আশংকায় মেয়র প্রার্থীদের কেউ-ই তাদের মনোনয়নপত্র প্রত্যাহার করেননি। স্বতন্ত্র মেয়রপ্রার্থী আরাফাত হোসেনের বিষয়ে দিনভর নানা গুঞ্জন ছিল অনেক মানুষের মুখে মুখে। তার সেলফোনটির সুইস সারাদিন বন্ধ থাকায় গুঞ্জনের সাথে যোগ হয় নানান শংকা। অনেকে সাংবাদিকদের কাছে ফোন করে তার বিষয়ে জানতেও চান। গুঞ্জনটি ছিল তার প্রার্থীতা প্রত্যাহারের বিষয় নিয়ে। তবে প্রার্থীতা প্রত্যাহারের শেষদিনে মনোনয়নপত্র প্রত্যাহার করেননি বাজার ব্যবসায়ী সমিতির সভাপতি আ.লীগ নেতা আরাফাত হোসেন। দিনভর বিভিন্ন এলাকায় গণসংযোগ ও সামাজিক বিভিন্ন অনুষ্ঠানে যোগও দেন তিনি।
এদিন আ.লীগ মনোনীত প্রার্থী দলের উপজেলা সাধারণ সম্পাদক আমিনুল ইসলাম লাল্টু কর্মী-সমর্থকদের নিয়ে পৌরসভার বিভিন্ন ওয়ার্ডে গণসংযোগ, মতবিনিময়, ক্রীড়ানুষ্ঠান ও অন্যান্য সামাজিক অনুষ্ঠানে যোগ দিয়েছেন। তিনি বলেন, মেয়র নির্বাচিত হতে পারলে জলাবদ্ধতা দূরিকরণ, সুপিয়ে পানি সরবরাহ, রাস্তা-ড্রেন-কালভার্ট উন্নয়ন ও মাদকমুক্ত মডেল পৌরসভায় রূপান্তরিত করা হবে। সকাল থেকে রাত পর্যন্ত ঝিকরা ৪নং ওয়ার্ড, তুলশীডাঙ্গা ২নং ওয়ার্ড, ১নং ওয়ার্ডের ইউরেকা ফুয়েল পাম্প এলাকা, ঝিকরা ৫নং ওয়ার্ডে গণসংযোগ করেন তিনি। এসব এলাকায় সাধারণ মানুষের সাথে মতবিনিময়ের পাশাপাশি তিনি সরকারি কলেজ মাঠে আয়োজিত ক্রিকেট টুর্নামেন্টের পুরষ্কার বিতরণী অনুষ্ঠানে যোগ দেন।
বিএনপি মনোনীত প্রার্থী সাময়িক বরখাস্ত পৌর মেয়র দলের উপজেলা ছাত্রবিষয়ক সম্পাদক গাজী আক্তারুল ইসলাম দিনের শুরু থেকে রাত পর্যন্ত পৌরসভাধীন মির্জাপুর ৯নং ওয়ার্ড ও গোপিনাথপুর ৬নং ওয়ার্ডে ভোটারদের বাড়ি-বাড়ি গিয়ে গণসংযোগ করেন। তিনি জানান, নিরপেক্ষ ও শান্তিপূর্ণভাবে জনগণ নিজেদের ভোট দেয়ার সুযোগ পেলে তিনি পূণরায় মেয়র নির্বাচিত হবেন। নির্বাচিত হতে পারলে উন্নয়নের অসমাপ্ত কাজ তিনি অব্যাহত রাখবেন। তিনি বলেন, জলাবদ্ধতা দূরিকরণ, রাস্তা-ড্রেনের উন্নয়ন, পৌরবাসির নাগরিক সুবিধাসহ আধুনিক পৌরসভা গড়তে তিনি সচেষ্ট হবেন।
জাতীয়পার্টির মনোনীত প্রার্থী দলের উপজেলা সভাপতি এম মুনছুর আলী ঢিলেতালে তার নির্বাচনী কার্যক্রম পরিচালনা করছেন বলে জানা গেছে।
এদিকে, কাউন্সিলর প্রার্থীরাও ঘাম ঝড়ানো জনসংযোগে ব্যস্ত সময় পার করছেন তাদের স্ব স্ব ওয়ার্ডে।






মন্তব্য চালু নেই