মেইন ম্যেনু

উপজেলা সা.সম্পাদকের সংবাদ সম্মেলনের প্রতিক্রিয়ায়

কলারোয়ায় পাল্টা সংবাদ সম্মেলন পৌর আ.লীগের সা.সম্পাদকের

কলারোয়া উপজেলা আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক আমিনুল ইসলাম লাল্টুর সংবাদ সম্মেলনের প্রতিক্রিয়ায় পাল্টা সংবাদ সম্মেলন করেছেন পৌর আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক ও পৌর নির্বাচন পরিচালনা কমিটির সদস্য শহিদুল ইসলাম। সংবাদ সম্মেলনে দলের সাধারণ সম্পাদকের বক্তব্যকে মিথ্যা, ভিত্তিহীন ও বানোয়াট দাবি করে তিনি বিষ্মিত ও হতবাক হয়েছেন বলে জানান।

গত শনিবার সন্ধ্যায় সাতক্ষীরা প্রেসক্লাবে কলারোয়া পৌর নির্বাচনের প্রেক্ষাপটে দলের স্থানীয় কয়েক নেতার বিরুদ্ধে বিভিন্ন অভিযোগে সংবাদ সম্মেলন করেন আমিনুল ইসলাম লাল্টু। ওই সংবাদ সম্মেলনের প্রতিক্রিয়ায় রোববার কলারোয়ায় পাল্টা এ সংবাদ সম্মেলন করেন পৌর আ.লীগের বিভিন্ন পর্যায়ের নেতৃবৃন্দ।

রোববার বিকেলে উপজেলা পরিষদ মিলনায়তনে আয়োজিত জনাকীর্ণ সংবাদ সম্মেলনে উপজেলা আ.লীগের সাবেক আহবায়ক সাজেদুর রহমান খাঁন চৌধুরী মজনু, আ.লীগ নেতা দেয়াড়া ইউপির ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান প্রভাষক আ.মান্নান, কুশোডাঙ্গা ইউপির ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান আসলামুল আলম, জয়নগর ইউপির ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান ফিরোজ আহম্মেদ, নবনির্বাচিত পৌর কাউন্সিলর মনিরুজ্জামান বুলবুল, কাউন্সিলর মফিজুল ইসলাম, কাউন্সিলর রফিকুল ইসলাম, কাউন্সিলর মেজবাহউদ্দীন লিলু, কাউন্সিলর আলফাজ হোসেন, কাউন্সিলর জাহাঙ্গীর হোসেন, কাউন্সিলর আকিমুদ্দিন আকি, মহিলা কাউন্সিলর ফারহানা হোসেন, মহিলা কাউন্সিলর সন্ধ্যা রাণী বর্মণ, মহিলা কাউন্সিলর লুৎফুন্নেছা লুতু, বিভিন্ন ওয়ার্ড আ.লীগের সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক লিয়াকত হোসেন, আফছার আলী, রনজিৎ কুমার ঘোষ, লতিফ সরদার, উপজেলা যুবলীগ সভাপতি কাজী সাহাজাদাসহ কলেজ ছাত্রলীগের নেতৃবৃন্দ।

লিখিত বক্তব্যে পৌর আ.লীগের সা.সম্পাদক শহিদুল ইসলাম বলেন, সদ্য অনুষ্ঠেয় কলারোয়া পৌরসভা নির্বাচনে আমাদের সকলকে নিয়ে উপজেলা আ.লীগের সভাপতি ফিরোজ আহম্মেদ স্বপন, সা.সম্পাদক ও প্রতিদ্বন্দ্বিতাকারী প্রার্থী আমিনুল ইসলাম লাল্টু পৌরসভা কমিটির সা.সম্পাদক শহিদুল ইসলাম যৌথভাবে ও কখনো আলাদাভাবে আমাদের এলাকায় একাধিকবার নৌকার পক্ষে ভোট প্রার্থনা করেন। গত ১২ডিসেম্বর’১৫ তারিখে বিকেলে দলের বর্ধিত সভায় যেখানে জেলা আ.লীগের সভাপতি ও সা.সম্পাদকের উপস্থিতিতে আমিনুল ইসলাম লাল্টু মাইকে বক্তৃতা দেয়ার সময় বলেছিলেন, ‘কলারোয়া পৌরসভায় ভোটের সংখ্যা ১৯হাজার সেখানে নৌকার ভোট মাত্র ৫হাজার’- এ গোপন তথ্যটি জনসম্মুখে প্রকাশ করে নিজেদের দূর্বলতার কথা জনগণ ও বিরোধীপক্ষকে জানিয়ে নিজেদের ক্ষতি করেছেন।

তিনি আরো বলেন, ২০১১সালের পৌর নির্বাচনে দল সমর্থিত প্রার্থী শেখ আমজাদ হোসেনের পক্ষে নির্বাচনী প্রচারণায় অংশ নিয়েছিলেন তৎকালীন স্বাস্থ্যমন্ত্রী আফম রুহুল হক, সাবেক তথ্যমন্ত্রী আবুল কালাম আজাদ, তৎতকালীন সাংসদ প্রকৌশলী শেখ মুজিবুর রহমান, তৎতকালীন উপজেলা চেয়ারম্যান, ভাইস চেয়ারম্যান, দলের আহবায়কসহ নেতাকর্মীরা। কিন্তু আমজাদ হোসেন সাহেব পেয়েছিলেন ২৬’শ ভোট। আর এবার ২০১৫সালের পৌর নির্বাচনে দল মনোনীত প্রার্থী আমিনুল ইসলাম লাল্টু পেয়েছেন ৩৬’শ ভোট।

পৌর আ.লীগের সা.সম্পাদক বলেন, বিদ্রোহী প্রার্থী আরাফাত হোসেন নির্বাচনী প্রচারণায় ফিরোজ আহম্মেদ স্বপনকে আক্রমন করে তার সম্পর্কে অশ্লীল উক্তি করেছেন। আমাদের ধারণা আমিনুল ইসলাম লাল্টু অন্যের প্ররোচনায় ও অসুস্থ্য মস্তিষ্কে সংবাদ সম্মেলনে যে অসত্য বিভ্রান্তিমূলক বক্তব্য দিয়েছেন তাতে দলকে হেয় করার শামিল। সংগঠনের স্বার্থে তার এই বক্তব্য প্রত্যাহার করার দাবিও জানানো হয় সংবাদ সম্মেলনে।

সংবাদ সম্মেলন শেষে যুবলীগ কলারোয়া পৌরসদরে মিছিল বের করে।






মন্তব্য চালু নেই