মেইন ম্যেনু

কলারোয়ায় বঙ্গবন্ধুর ৯৮ তম জন্মদিবস ও জাতীয় শিশু দিবস পালিত

কামরুল হাসান, কলারোয়া: সাতক্ষীরার কলারোয়ায় শুক্রবার যথাযথ মর্যাদা ও বিভিন্ন কর্মসূচির মধ্য দিয়ে জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ৯৮ তম জন্ম দিবস ও জাতীয় শিশু দিবস পালিত হয়েছে। দিবসটি উপলক্ষে উপজেলা প্রশাসন বিভিন্ন কর্মসূচি পালন করে।

সকাল ৮ টায় উপজেলা মুক্তিযোদ্ধা কমপ্লেক্সে জাতির জনক বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিতে পুষ্পমাল্য অর্পণ করা হয়। পুষ্পমাল্য অর্পণ করেন উপজেলা নির্বাহী অফিসার উত্তম কুমার রায়, থানার অফিসার ইনচার্জ এমদাদুল হক শেখ, ওসি (তদন্ত) আখতারুজ্জামান, কলারোয়া সরকারি কলেজের অধ্যক্ষ প্রফেসর বাসুদেব বসু, উপজেলা মুক্তিযোদ্ধা সংসদ কমান্ডার গোলাম মোস্তফা, সাংগঠনিক কমান্ডার সৈয়দ আলি, মুক্তিযোদ্ধা আনোয়ার হোসেন, কলারোয়া প্রেসক্লাবের সভাপতি শিক্ষক দীপক শেঠ, সাধারণ সম্পাদক শেখ জুলফিকারুজ্জামান জিল্লু, সাবেক সাধারণ সম্পাদক প্রধান শিক্ষক রাশেদুল হাসান কামরুল, হোমিওপ্যাথিক কলেজের অধ্যক্ষ ডা: আব্দুল বারিক, অধ্যক্ষ মুহা. আইয়ুব আলি, প্রধান শিক্ষক আব্দুর রব, প্রধান শিক্ষক বদরুজ্জামান বিপ্লবসহ সকল সরকারি কর্মকর্তা ও প্রতিষ্ঠান প্রধানগণ। এরপর সর্ব স্তরের জনতা ও বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের শিক্ষক-শিক্ষার্থীদের অংশগ্রহণে বের করা হয় বিশাল র‌্যালি।

র‌্যালি কলারোয়া পৌর শহর প্রদক্ষিণ করে উপজেলা পরিষদ চত্বরে এসে শেষ হয়। র‌্যালি শেষে একই স্থানে উপজেলা নির্বাহী অফিসার উত্তম কুমার রায়ের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত হয় আলোচনা সভা। সভায় বঙ্গবন্ধুর জীবনভিত্তিক আলোচনা করেন কলারোয়া সরকারি কলেজের সাবেক অধ্যক্ষ প্রফেসর আবু নসর, শিক্ষাবিদ অধ্যাপক এমএ ফারুক, উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা কর্মকর্তা আবদুল হামিদ, অধ্যক্ষ মনিরা বেগম, উপজেলা মুক্তিযোদ্ধা সংসদ কমান্ডার গোলাম মোস্তফা, সাংগঠনিক কমান্ডার সৈয়দ আলি, উপজেলা পূজা উদযাপন পরিষদের সভাপতি মনোরঞ্জন সাহা, এসআই রফিক প্রমুখ। সভাটি সঞ্চালন করেন কলারোয়া প্রেসক্লাবের সভাপতি শিক্ষক দীপক শেঠ। আলোচনা শেষে অনুষ্ঠানে উপজেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে ২০১৬ সালের প্রাথমিক সমাপনী, ইবতেদায়ী, জে.এস.সি, জে.ডি.সি, এস.এস.সি, দাখিল ও এস.এস.সি ভোকেশনালে সর্বোচ্চ নম্বরধারী কৃতি শিক্ষার্থীদের সংবর্ধনা ও ক্রেষ্ট প্রদান করা হয়।

সকাল সাড়ে ১০ টায় উপজেলা অডিটোরিয়ামে অনুষ্ঠিত হয় শিশুদের চিত্রাঙ্কন ও রচনা প্রতিযোগিতা। বেলা ১১ টায় অনুষ্ঠিত হয় সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান। এছাড়া উপজেলার সকল মসজিদে জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের রুহের মাগফেরাত কামনা করে প্রার্থনা করা হয়। উপজেলার সকল সকল মন্দির, গীর্জা ও অন্যান্য উপাসনালয়ে বিশেষ প্রার্থনা করা হয় বলে জানা গেছে। দিবসটি উপলক্ষে উপজেলার বিভিন্ন শিক্ষা ও সামাজিক প্রতিষ্ঠানে বিভিন্ন কর্মসূচি পালন করা হয়েছে।






মন্তব্য চালু নেই