মেইন ম্যেনু

কলারোয়ায় মা না হয়েই চলে গেলেন জান্নাতুন্নাহার

কামরুল হাসান, কলারোয়া (সাতক্ষীরা) প্রতিনিধি: সাতক্ষীরার কলারোয়ায়ার কাদপুর গ্রামের জান্নাতুন্নাহার ফেরদৌস(১৮) প্রথম মা হওয়ার যখন সকল মানসিক প্রস্তুতি গ্রহণ করছিলেন, তখনই ঘটলো এক মহা বিপত্তি। ৪ মাস অন্ত:সত্ত্বা অবস্থায় হঠাৎ মস্তিষ্কে স্ট্রোক করে জান্নাতুন্নাহারের। পরিবারের সকলেই যখন প্রথম সন্তানের আগমনের অপেক্ষায় দিন গুণছিলেন, ঠিক তখনই চলে গেলেন জান্নাতুন্নাহার। পারিবারিক সূত্রে জানা যায়, মস্তিষ্কে স্ট্রোক করার পর পরই তাঁকে খুলনা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। সেখানে ডাক্তারদের প্রাণপণ চেষ্টা বিফল হলে তাকে বাড়ি ফিরিয়ে আনা হচ্ছিলো। ফেরার পথে শনিবার রাত ৮ টার দিকে মারা যায় জান্নাতুন্নাহার (ইন্না ……. রাজিউন)। জান্নাতুন্নাহারের পিতার নাম নাম মাহাবুর রহমান। তিনি বেনাপোল নব দিগন্ত প্রি-ক্যাডেট স্কুলে শিক্ষকতা করেন। প্রায় বছর দেড়েক আগে জান্নাতুন্নাহারের বিয়ে হয় শার্শার নাভারন এলাকার শ্যামলাগাছি গ্রামের জনৈক মাসুদুর রহমানের সাথে। রোববার কাদপুর গ্রামের পিত্রালয়ে নামাজে জানাযা শেষে পারিবারিক কবরস্থানে মরহুমার দাফন সম্পন্ন করা হয়। জান্নাতুন্নাহারের অকাল মৃত্যুতে গভীর শোক ও সমবেদনা জানিয়েছেন কাদপুর গ্রামের সকল মানুষ। শোক প্রকাশ করেছেন উপজেলা জাতীয় পার্টির আহবায়ক মশিউর রহমান, বেনাপোল নব দিগন্ত প্রি-ক্যাডেট স্কুলের প্রধান শিক্ষক আবু তালহা, শিক্ষানুরাগী আব্দুল ওহাব মল্লিক, বেনাপোল ডিগ্রি কলেজের অধ্যক্ষ কামরুজ্জামান, কলারোয়া প্রেসক্লাবের সাংগঠনিক সম্পাদক আতাউর রহমান, রুহুল কুদ্দুস মোল্লা, শিক্ষক রফিকুল ইসলাম, নজরুল ইসলাম, ওমর ফারুক, শিক্ষিকা মাহমুদা আক্তার, সুইটি খাতুন, হীরা খাতুন, ইউপি সদস্য শাহাদাৎ হোসেন, জাপা নেতা সাইদুল্লাহ, ডা: আবুল কালাম, আব্দুর রাজ্জাক, মাওলানা আব্দুল্লাহ আল মামুন প্রমুখ।






মন্তব্য চালু নেই