মেইন ম্যেনু

কলারোয়ায় সড়ক দূর্ঘটনায় ৩২জন যাত্রী আহত

সাতক্ষীরার কলারোয়ায় যশোর-সাতক্ষীরা মহাসড়কের শেখ আমানুল্লাহ ডিগ্রী কলেজের সামনে যাত্রীবাহি বাস নিয়ন্ত্রন হারিয়ে একটি চলন্ত ট্রাকের পিছনে সজোরে ধাক্কা দিলে বাসটি দুমড়ে মুচড়ে যায়। এতে বাসের ভিতরে থাকা ৩০/৩২জন যাত্রী গুরুত্ব আহত হয়েছে। মঙ্গলবার বেলা ১১টার দিকে এ ঘটনা ঘটে।

পরে থানা পুলিশ খবর পেয়ে দ্রুত ঘটনা স্থানে পৌছে আহত যাত্রীদের উদ্ধার করে কলারোয়া হাসপাতালে ভর্তি করার জন্য সহযোগিতা করেন। এসময় পুলিশ দূর্ঘটনা কবলিত যাত্রীবাহি বাসটি মহাসড়কের যানযট নিরসনের জন্য ওই স্থান থেকে উদ্ধার করে স্থানীয় ট্রাক টার্মিনালে নিয়ে আসে।

স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, মঙ্গলবার বেলা ১১টার দিকে যশোর থেকে ছেড়ে আসা যাত্রী বাহি বাস (সিলেট-জ-০৪-০১০১) দ্রুত গতিতে কলারোয়ায় আসার পথে শেখ আমানুল্লাহ ডিগ্রী কলেজের সামনে পৌছালে বাসটির ড্রাইভার নিয়ন্ত্রন হারিয়ে সামনের দিকে একটি চলন্ত ট্রাকের পিছনে সজোরে ধাক্কা মারে।
এতে ওই গাড়ীতে থাকা যাত্রী-কলারোয়া উপজেলার কেরালকাতা গ্রামের মৃত. মোকছেদ আলীর ছেলে মাহবুবর রহমান (৩৫), কাউরিয়া গ্রামের হায়াত আলীর ছেলে শামিম হোসেন (৩০), যশোরের ধোপা খোলা গ্রামের বাবু (৩৫), সাতক্ষীরার মকুন্দপুর গ্রামের মৃত. কাওসার আলীর ছেলে হাবিবুর রহমান (৬০), মাটিয়া-কুমড়া গ্রামের আহসানের স্ত্রী তানিয়া খাতুন (২৪), পুত্র তামিম হোসেন (৮), তাসলিম হোসেন (৬), কলারোয়া উপজেলার সিংগা গ্রামের মৃত বাকের আলীর ছেলে মিজানুর রহমান (৫০), স্ত্রী সালেহা বেগম (৩৫), নাজমুল ইসলামের স্ত্রী মরিয়ম খাতুন (২৩), গোয়ালচাতর গ্রামের ইদ্রিস আলী (২৮)সহ প্রায় ৩০/৩২জন যাত্রী আহত হয়।

গুরুতর আহত যাত্রীদের সাতক্ষীরা সদর হাসপাতালে নেয়া হয়েছে বলে জানা গেছে।






মন্তব্য চালু নেই