মেইন ম্যেনু

কলারোয়ায় ৩ বছরের শিশু ধর্ষন চেষ্টার অভিযোগ ॥ লম্পট পলাতক

কামরুল হাসান, কলারোয়া: সাতক্ষীরার কলারোয়ায় পঞ্চাশোর্ধ এক লম্পটের বিরুদ্ধে তিন বছরের এক শিশুকে ধর্ষন চেষ্টার অভিযোগ করা হয়েছে। লম্পট মিয়ারাজ (৫১) উপজেলার উত্তর সোনাবাড়িয়া গ্রামের মৃত গোলাম রসুলের ছেলে। ঘটনাটি ঘটেছে রোববার সকাল সাড়ে ৯ টার দিকে উত্তর সোনাবাড়িয়ায় লম্পট মিয়ারাজের শশুর নজরুল ইসলামের বাড়ির সামনে একটি আম বাগানে।

শিশুটির নানী মহিদুল ইসলামের স্ত্রী জামেলা খাতুন জানান, মিয়ারাজ সব সময় তাদের বাড়িতে যাওয়া আসা করতো। রোববার ওই সময় সে তাদের বাড়িতে এসে সবার অজান্তে তার নাতনী মুসলিমা খাতুন পিয়া (০৩) কে নিয়ে তাদের বাড়ির সামনে বাগানে নিয়ে ধর্ষনের চেষ্টা চালায়। এ সময় তার জা (দেবরের স্ত্রী) আছিয়া খাতুন ঘটনাটি দেখতে পেয়ে তাকে ডেকে দেয়। তাৎক্ষণিকভাবে তিনি ওই বাগানে ছুটে গিয়ে ধর্ষনের চেষ্টাকালে লম্পট মিয়ারাজের হাত থেকে তার নাতনীকে উদ্ধার করে। এসময় ওই লম্পট দৌড়ে পালিয়ে যায়।

পরে বিষয়টি থানা পুলিশে জানালে থানার এসআই পিন্টু লাল শিশুটি উদ্ধার করে কলারোয়া স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তির ব্যবস্থা করেন।

এদিকে, কলারোয়া স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের জরুরী বিভাগের চিকিৎসক ডা. রেজওয়ান হোসেন সাংবাদিকদের জানান, শিশুটির অভিভাবকরা তাকে এখানে নিয়ে এসেছিল। তবে শিশুটি ধর্ষিত হয়েছে কি-না সেটি পরীক্ষা-নিরীক্ষার জন্য সাতক্ষীরা সদর হাতপাতালে নিয়ে যাওয়ার পরামর্শ দেওয়া হয়েছে।

এ ব্যাপারে সোনাবাড়িয়া ইউপি চেয়ারম্যান মনিরুল ইসলাম জানান, শিশুটির উপর যৌন নির্যাতনের চেষ্টা চালানো হয়েছে।

এ বিষয়ে কলারোয়া থানার অফিসার ইনচার্জ শেখ আবু সালেহ মোহাম্মদ মাসুদ করিম জানান, তিনি ঘটনাটি জানার সাথে সাথে ঘটনাস্থলে পুলিশ অফিসার পাঠিয়ে শিশুটি উদ্ধার করেন। এখন অপরাধী মিয়ারাজকে ধরতে পুলিশ সব ধরণের চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে।

এদিকে, সাতক্ষীরা সহকারী পুলিশ সুপার আতিকুল হক কলারোয়া হাতপাতালে শিশুটিকে দেখতে আসেন এবং তার অভিভাবকদের সাথে কথা বলেন। এ সময় তিনি অপরাধীকে ধরার নির্দেশ প্রদান করেন বলে তদন্তকারী কর্মকর্তা থানার এসআই পিন্টু লাল জানান। এ ব্যাপারে আহত শিশুর পরিবারের পক্ষ থেকে মামলার প্রস্তুতি চলছিলো বলে জানা গেছে।






মন্তব্য চালু নেই