মেইন ম্যেনু

কেরালকাতা ও দেয়াড়া ইউনিয়ন পরিষদকে যুগ্ম চ্যাম্পিয়ান ঘোষণা

কলারোয়া উপজেলা আন্ত:ইউনিয়ন ফুটবল টুর্নামেন্টের সমাপ্তি

সাতক্ষীরার কলারোয়ায় উপজেলা আন্ত:ইউনিয়ন ফুটবল টুর্নামেন্টের ফাইনাল খেলায় অতিতের সকল রেকর্ড ভঙ্গ করে দু’দলে সর্বোচ্চ ১২ জন বিদেশি খেলোয়াড়ের অংশ গ্রহণে দৃষ্টিনন্দন খেলায় কেরালকাতা ও দেয়াড়া ইউনিয়নকে যৌথভাবে চ্যাম্পিয়ান ঘোষণা করা হয়েছে।

শনিবার বিকেলে কলারোয়া পাইলট হাইস্কুল ফুটবল মাঠে আয়োজিত ওই খেলার প্রথমার্ধে গোলশূন্য থাকলেও দ্বিতীয়ার্ধের ১৫ মিনিটে কেরালকাতা দলের ১০নং জার্সিধারি নাইজেরিয়ান খেলোয়াড় সেগু প্রথম গোলটি করেন। এরপর পরই তুমুল প্রতিদ্বন্দ্বীতা পূর্ণ ওই খেলায় দেয়াড়া দলের ১০ নং জার্সিধারী খেলোয়াড় দুদু খেলার শেষ মুহূর্তে দর্শনীয় গোল করে খেলায় সমতা ফিরিয়ে আনেন।

৮দলীয় এ টুর্নামেন্টের ফাইনাল খেলা উপভোগ করার জন্য দুপুর থেকে কলারোয়ার ঐতিহ্যবাহী এ মাঠে দর্শকবৃন্দ আসতে শুরু করেন। দুর্যোগপূর্ণ আবহাওয়া থাকা সত্ত্বেও মাঠে হাজার হাজার দর্শকের উপস্থিতি জানান দেয় চিরচেনা কলারোয়ায় ক্রীড়া ও সংস্কৃতিমনা মানুষের অভাগ কোনদিন ছিলোনা এবং এখনও নেই। ফাইনাল খেলাটি পরিচালনা করেন যশোর থেকে আগত দক্ষ রেফারী জিল্লুর রহমান, সাইফুল ইসলাম ও হুমায়ন কবীর এবং ৪র্থ রেফারী মিয়া মো.ফারুক হোসেন স্বপন। ধারাভাষ্যে ছিলেন মাস্টার শেখ শাহজাহান আলী শাহিন, প্রভাষক রফিকুল ইসলাম, আবু বক্কর ছিদ্দীক।

খেলা শেষে অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থেকে টুর্নামেন্টের পুরস্কার বিতরণ করেন কলারোয়া উপজেলা আ.লীগের সভাপতি উপজেলা চেয়ারম্যান ফিরোজ আহম্মেদ স্বপন। প্রধান অতিথি এ সময় বলেন, করারোয়ার মাটিকে মাদকের করাল গ্রাস থেকে চিরতরে রক্ষা করতে হলে আমাদের সন্তানদের খেলা-ধুলায় ফিরিয়ে আনতে হবে। আর সেজন্য কলারোয়াবাসীর সহযোগিতা কামনা করে তিনি সামনের দিনগুলোতে এমনিভাবে ক্রীড়া ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের মাধ্যমে মাদককে না বলার প্রত্যয়ে এগিয়ে যাবেন বলে ঘোষণা দেন।

ফিরোজ আহম্মেদ স্বপন আরও বলেন, আমরা আমাদের এই প্রিয় কলারোয়ার মাটিতে আর কোন জঙ্গিবাদের উত্থান দেখতে চাইনা। উপজেলা নির্বাহী অফিসার অনুপ কুমার তালুকদারের সভাপতিত্বে আয়োজিত জমকালো ওই অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসাবে উপস্থিত ছিলেন উপজেলা আ.লীগের সাধারণ সম্পাদক ভাইস চেয়ারম্যান আমিনুল ইসলাম লাল্টু, কলারোয়া থানার অফিসার ইনচার্জ শেখ আবু সালেহ মাসুদ করিম, কলারোয়া থানার পুলিশ পরিদর্শক (তদন্ত) শেখ সফিকুর রহমান, উপজেলা আ.লীগের সাবেক আহবায়ক সাজেদুর রহমান খাঁন চৌধুরী মজনু।

এসময় উপস্থিত ছিলেন উপজেলা মুক্তিযোদ্ধা সংসদ’র সাংগঠনিক কমান্ডার বীর মুক্তিযোদ্ধা সৈয়দ আলী, ক্রীড়া সংস্থার সাধারণ সম্পাদক জাহিদুর রহমান খাঁন চৌধুরী, আলহাজ্ব আব্দুর রহিম বাবু, ইউপি চেয়ারম্যান স,ম মোরশেদ আলী, ভারপ্রাপ্ত ইউপি চেয়ারম্যান প্রভাষক আব্দুল মান্নান, ইউপি চেয়ারম্যান অধ্যাপক এমএ কালাম, ইউপি চেয়ারম্যান ভূট্টোলাল গাইন, কলারোয়া পাবলিক ইনস্টিটিউট’র সাধারণ সম্পাদক এড.শেখ কামাল রেজা, প্রধান শিক্ষক আব্দুর রব, প্রধান শিক্ষক বদরুজ্জামান বিপ্লব, প্রধান শিক্ষক হরিসাধন ঘোষ, প্রধান শিক্ষক আজহারুল ইসলাম, প্রধান শিক্ষক নুরুল ইসলাম, প্রধান শিক্ষক সাংবাদিক রাশেদুল হাসান কামরুল, সাংবাদিক আজাদুর রহমান খান চৌধুরী পলাশ, শিক্ষক সাংবাদিক দীপক শেঠ ও শেখ জুলফিকারুজ্জামমান জিল্লু, থানার সেকেন্ড অফিসার এসআই শোয়েব আলী, পৌর কাউন্সিলর মাস্টার মনিরুজ্জামান বুলবুল, পৌর কাউন্সিলর জাহাঙ্গীর হোসেন, উপজেলা যুবলীগের আহ্বায়ক কাজী সাহাজাদা, যুগ্ম আহ্বায়ক আসাদুজ্জামান তুহিন, আশিকুর রহমান মুন্না, পৌর আ.লীগের সভাপতি আজিজুর রহমান, সাধারণ সম্পাদক শহিদুল ইসলাম, কাজী আব্দুল ওহাব, মাস্টার হাফিজুর রহমান, প্রভাষক মশিয়ার রহমান বাবু, মেহেদী হাসান, শামছুদ্দীন আল-মাসুদ বাবু, শ্রমিকলীগের সভাপতি আব্দুর রহিম, এনায়েত খান টুন্টু, সাংবাদিক মাস্টার আব্দুল ওহাব মামুন, সাংবাদিক জুলফিকার আলী, শেখ মাসুমুজ্জামান মাসুম প্রমুখ।

ফাইনাল খেলায় ম্যান অব দ্যা ম্যাচ ঘোষণা করা হয় দেয়াড়া দলের ১০ নং জার্সিধারী দুদু, সেরা গোল রক্ষক নির্বাচিত হন কেরালকাতা দলের রাফি এবং প্রথম গোলদাতার পুরস্কার পান কেরালকাতা দলের ১০ নং জার্সিধারী সেগু।






মন্তব্য চালু নেই