মেইন ম্যেনু

কলারোয়া চাষীরা বিপুল উৎসাহ নিয়ে পাটের আবাদ করছেন

একরামুল কবীর, সাতক্ষীরা থেকে: বিনামূল্যে পাট বীজ বিতরণ,বিভিন্ন পণ্য মোড়কীকরণের জন্য পাটের ব্যবহার বাধ্যতামূলক এবং গত বছরে পাটের দাম বেশী পাওয়ায় সাতক্ষীরার কলারোয়া উপজেলার কৃষকেরা এবারের মৌসূমে বিপুল উৎসাহ উদ্দীপনা নিয়ে পাটের আবাদ করছেন।

কলারোয়া উপজেলায় এবারের মৌসূমে পাট চাষের লক্ষ্যমাত্রা ধরা হয়েছিল ৩ হাজার হেক্টর জমিতে। অর্জিত হয়েছে ২হাজার ৯শ ৬৫ হেক্টর। যা অন্য বারের চেয়ে অনেক বেশী।

কলারোয়া উপজেলা পাট অধিদপ্তরের উপসহকারী পাট কর্মকর্তা পিকলু বিশ্বাষ জানান, এবারের মৌসূমে পাট অধিদপ্তর থেকে কলারোয়া উপজেলার ১শ জন চাষীকে বিনামূল্যে উন্নত মানের পাটের বীজ সরবরাহ করা হয়েছে।

তিনি আরো জানান,বর্তমান কৃষি বান্ধব সরকার অভ্যন্তরীন পাটজাত দ্রব্যের সর্বোচ্চ ব্যবহার নিশ্চিত করার জন্য বাজারের বিভিন্ন দ্রব্যের মোড়কী করার জন্য পাটের ব্যবহার বাধ্যতামূলক করেছে।

ধান,গম,ভুট্টা,চিনি,আটা,পিয়াজ,রসুন সহ ১২ টি পণ্যের মোড়কী করণের জন্য পাটের ব্যাগ বাধ্যতা মুলক করা হয়েছে। এবং অচিরেই শুধু মাত্র ইউরিয়া সার ছাড়া সব ধরনের দ্রব্যের মোড়কীকরণের জন্য পাটের ব্যবহার বাধ্যতামূলক করা হবে।

যদি এটা সম্ভব হয় তাহলে সোনালী আঁশ পাটের সেই সোনালী দিন আবারো ফিরে আসবে। পাট বিদেশে রপ্তানী না হলেও দেশের মধ্যে পাটের ব্যবহার ব্যাপক হারে বেড়ে যাবে। বিদেশে রপ্তানি না হলেও পাটের চাহিদা দেশের মধ্যে ব্যাপক হারে বেড়ে যাবে। এতে করে পাট চাষ করে চাষীদের আর ব্যাপক লোকশান গুনতে হবে না।

সে আশায় বুক বেধে পাট চাষীরা এবারের মৌসূমে ব্যাপকভাবে পাটের আবাদ করেছেন।






মন্তব্য চালু নেই