মেইন ম্যেনু

কলারোয়া হাসপাতালের টিএইচও’র দূর্নীতি-অনিয়মের বিরুদ্ধে বীর মুক্তিযোদ্ধার সংবাদ সম্মেলন

সাতক্ষীরার কলারোয়া স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কমপ্লেক্সটির (হাসপাতাল) অনিয়ম, দূর্নীতি, চিকিৎসা নিতে আসা রোগীদের অবহেলা, দূর্ব্যবহার ও চিকিৎসা বঞ্চনার শিকার হচ্ছেন বলে অভিযোগ করেছেন মুক্তিযুদ্ধকালীন কমান্ডার মোসলেম উদ্দীন।

রোববার দুপুরে নিজ বাসভবনে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে তিনি এ অভিযোগ করেন। সংবাদ সম্মেলনে কলারোয়া প্রেসক্লাব ও রিপোটার্স ক্লাবের সাংবাদিকরা উপস্থিত ছিলেন।

রণাঙ্গনের বর্ষিয়ান বীর মুক্তিযোদ্ধা মোসলেম উদ্দীন নিজে শারীরিক অসুস্থ হয়েও কলারোয়া হাসপাতাল ও স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তার (টিএইসও) বিভিন্ন অনিয়ম ও দূর্নীতির বিরুদ্ধে সোচ্চার হওয়ার জন্য সকলের প্রতি আহবান জানান।

লিখিত বক্তব্যে তিনি বলেন, উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা (টিএইচও) মাসের অর্ধেক কার্য দিবসে কর্মস্থলে উপস্থিত থাকেন না। রোগীরা যন্ত্রণায় ছটফট করলেও অনেক সময় কোন ডাক্তার বা নার্স খুঁজে পাওয়া যায় না। যদিও যাদের পাওয়া যায় তারা বেশির ভাগ ক্ষেত্রে রোগীদের সাতক্ষীরায় নিয়ে যেতে পরামর্শ অথবা তাদের নির্দিষ্ট ক্লিনিকে নিয়ে যেতে বাধ্য করেন।

photo-18তিনি আরো বলেন, বিনামূল্যের ঔষধ রোগীদের দেয়া হয়না, অজ্ঞাত কারণে বিশেষ বিশেষ ঔষধের দোকানে ওইসব ঔষধ পাওয়া যায়।
হাসপাতালে সরকার কর্তৃক বরাদ্দকৃত মানসম্মত খাবার ভর্তি থাকা রোগীদের না দিয়ে নিন্মমানের খাবার পরিবেশন করা হয়। এছাড়াও ডাক্তার-কর্মচারীদের কাছ থেকে দূর্ব্যবহার পাওয়া যেন নিত্যদিনের ঘটনা হয়ে দাড়িয়েছে সাধারণ রোগীদের ক্ষেত্রে।

তিনি বলেন, বর্তমান সরকার যখন স্বাস্থ্য সেবা গ্রামীণ জনগণের দ্বারপ্রান্তে পৌছে দিচ্ছেন, যখন মাতৃ-শিশু মৃত্যুর হার কমিয়ে আনায় সাউথ-সাউথ পুরষ্কারসহ জাতিসংঘের অন্যান্য পুরষ্কার প্রাপ্তিতে বিশ্বে বাংলাদেশের ভাবমূর্তি উজ্জ্বল হচ্ছে তখন কলারোয়া হাসপাতাল ও টিএইচও-কর্মচারীদের অনিয়ম-দূর্নীতি মেনে নেয়া যায় না।

এককালের তুখোড় রাজনীতিক মোসলেম উদ্দীন হাসপাতালের ও টিএইচওসহ ডাক্তার-কর্মচারীদের সকল অনিয়ম-দূর্নীতি দূর করে কলারোয়াবাসী যাতে সুচিকিৎসা পেতে পারে তা নিশ্চিত করার জন্য ঊর্দ্ধতন কর্তৃপক্ষের প্রতি দাবি জানিয়েছেন। সকলের মানসিক বিবেককে জাগ্রত করতে এ ব্যাপারে এগিয়ে আসার আহবান জানিয়েছেন তিনি।






মন্তব্য চালু নেই