মেইন ম্যেনু

কলেজছাত্রীকে ধর্ষণের ভিডিও ফেসবুকে, দম্পতি গ্রেফতার

ঝালকাঠির রাজাপুর উপজেলায় এক কলেজ ছাত্রীকে ধর্ষণের পর তার নগ্ন ভিডিও মোবাইলে ধারণ করে তা ছড়িয়ে দেওয়ার অভিযোগ পাওয়া গেছে।

উপজেলার কানুদাসকাঠি গ্রামের এ ঘটনায় বুধবার গভীর রাতে ওই ছাত্রীর বাবা রাজাপুর থানায় মামলা করেন।

পরে রাতেই অভিযুক্ত দুলাল ও সহযোগীতাকারী তার স্ত্রী পূর্ণিমা রানীকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। বৃহস্পতিবার দুপুরে আদালতের মাধ্যমে তাদেরকে জেল হাজতে পাঠানো হয়। ওই কলেজ ছাত্রীকে ডাক্তারি পরীক্ষার জন্য ঝালকাঠি সদর হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে।

খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, ‘প্রেমের ফাঁদে’ ফেলে কয়েক মাস ধরে কানুদাসকাঠি এলাকার বখাটে যুবক ফয়জুল ওই কলেজ ছাত্রীকে ধর্ষন করে এর স্থিরচিত্র মোবাইলে ধারণ করে। এরপর থেকে ব্লাকমেইল করে ফয়জুল, দুলাল ও তার বন্ধুরা ওই ছাত্রীকে ধর্ষণ করে আসছিল। কয়েকদিন আগে ওই ভিডিও চিত্র ফেসবুকে ও এলাকার সর্বত্র ছড়িয়ে দেয় ফয়জুল।

বুধবার ওই ছাত্রীর বাবা বাদী হয়ে রাজাপুর থানায় ফয়জুলকে প্রধান আসামি করে ৫ জনের বিরুদ্ধে ধর্ষণ মামলা করেন। পুলিশ রাতে দুলাল মিস্ত্রী ও তার স্ত্রী পূর্ণিমা রানীকে গ্রেফতার করে।

রাজাপুর থানার পরিদর্শক (ওসি) মুনীর উল গিয়াস জানান, এ ঘটনায় মামলা হয়েছে। দুই আসামিকে গ্রেফতার করা হয়েছে এবং ধর্ষণের ভিডিও চিত্র ধারণ করা মেমোরিকার্ডটি জব্দ করা হয়েছে। অন্যদের গ্রেফতারের চেষ্টা চলছে।






মন্তব্য চালু নেই