মেইন ম্যেনু

কলেজে মেয়েদের জন্য নিষিদ্ধ লেগিংস-জিনস-ফেসবুক

রক্ষণশীল হতে গিয়ে, অতীতে বিতর্কের মুখে পড়েছেন অনেক অধ্যক্ষই। কিন্তু, এমন ‘রক্ষণশীল’ কলেজ ভূ-ভারতে যে কোথাও আছ, তা জেনে যে কেউ-ই বিস্মিত হবেন। এমনকী যিনি বা যাঁরা নিজেদের রক্ষণশীল বলে দাবি করেন, তাঁরও বিস্ময়ে চোখ কপালে তুলতে বাধ্য হবেন। ছাত্রদের সঙ্গে ছাত্রীরা কথা বলতে পারবেন না, ফেসবুক করা যাবে না, ছোট দোপাট্টা ব্যবহার করা যাবে, হাইহিল পরা যাবে না… এই ‘না’-এর তালিকাটা দীর্ঘই।

চেন্নাইয়ের শ্রী সাইরাম কলেজ অফ ইঞ্জিনায়ারিংয়ের এই বিধি। নতুন ব্যাচে ভর্তি হওয়া ছাত্রীদের উদ্দেশে এই তালিকা প্রকাশ করেছে কলেজটি। যা এককথায়, ফতোয়া-ই।

দেখুন কী রয়েছে সেই ‘বিগ NOs ফর গার্লস’ শীর্ষক বিধিনিষেধে।

►১. কোনও লেগিংস বা গায়ে লেপ্টে থাকা আঁটো প্যান্ট পরা যাবে না। পরতে হবে টপ। ►২. খাটো কুর্তা পরার ক্ষেত্রেও নিষেধাজ্ঞা জারি। ►৩. যেসব জামার পিছনে বাঁধার জন্য লেস রয়েছে, পরা যাবে না তা-ও। ►৪. চুল খুলে আসতে মানা। ►৫. বড় ধরনের আংটি পরার ক্ষেত্রেও নিষেধাজ্ঞা আরোপ। ►৬. হাইহিল বা ফ্যান্সি জুতো পরা যাবে না। ►৭. পাতিয়ালা, আনারকলি ছাড়াও নেট দেওয়া ফ্যান্সি পোশাক পরার ক্ষেত্রেও রয়েছে নিষেধাজ্ঞা। ►৮. চুলে রং করা যাবে না। (শুধু ছাত্রীরাই নয়, শিক্ষকদের জন্যেও রয়েছে একই নির্দেশিকা) ►৯. পরা যাবে না স্বচ্ছ ও ছোট দোপাট্টা। ►১০. গেঞ্জি কাপড়েরও কোনও প্যান্ট পরা যাবে না। ►১১. বড় ধরনের ডিজাইনার ঘড়ি বা রংচঙা ঘড়িও পরা যাবে না। ►১২. সন্তানের সঙ্গে দেখা করার জন্য হস্টেলে ঢোকার অনুমতি অভিভাবকরা পাবেন না। ►১৩. দোপাট্টার দু’পাশে পিন করতে হবে। ►১৪. ছাত্রদের সঙ্গে কথা বলতে মানা। ►১৫. ফেসবুক, হোয়াটসঅ্যাপ ছাড়াও কোনও সোশ্যাল নেটওয়ার্ক সাইটে থাকা যাবে না। ►১৬. দুই বা চার চাকার গাড়ি চালানোর ক্ষেত্রেও বিধিনিষেধ আরোপ।






মন্তব্য চালু নেই