মেইন ম্যেনু

কলেজ ছাত্রী ইভটিজিংয়ের শিকার ॥ উত্যক্তকারীকে মোবাইল কোর্টে ৬ মাসের কারাদন্ড

মোহাম্মদ শামছুদ্দোহা, জেলা প্রতিনিধি, বান্দরবান : বান্দরবানের লামায় মেহ্লা অং মার্মা(১৯) কর্তৃক ইভটিজিং এর শিকার হয়েছে বান্দরবান সরকারী মহিলা কলেজের ছাত্রী পিপিনু মার্মা(১৮)। ইভটিজিং এর অভিযোগ প্রমানিত হওয়ায় ১৩ জুন সোমবার লামা উপজেলা নির্বাহী ম্যাজিষ্ট্রেট খালেদ মাহমুদ মোবাইল কোর্ট আইনের মাধ্যমে আসামী মেহ্লা অং কে ৬ মাসের বিনাশ্রম কারাদন্ড প্রদান করা হয়।

জানা যায়, অভিযোক্ত যুবক মেহ্লা অং মার্মা(১৯) তার নিজের খেয়াল খুশিতে পিপিনু মার্মাকে ভালবাসতে থাকে। এক সময় মেহ্লা অং মার্মা তার না বলা কথা(ভালবাসার প্রস্তাব) জানানোর জন্য পাগল হয়ে পড়ে। এর ফাঁকে কোন এক দিন পিপিনুকে তার ভালবাসার কথা জানিয় দেয় মেহ্লা অং মার্মা । কিন্তু পিপিনু মার্মা তা গ্রহন না করে তার প্রস্তাব ফিরিয়ে দেয়। পিপিনু মার্মার ইচ্ছার বিরুদ্ধেও পিছু ধরে লামা মাতামুহুলী কলেজের এইচএসসি ২য় বর্ষের এই ছাত্র মেহ্লা অং মার্মা । দীর্ঘ দিন ভালবাসার আবেদন নিয়ে ঘুরে পিপিনুকে রাজি করাতে না পেরে মেলাহ্লা অং মার্মা ক্ষিপ্ত হয়ে অন্য পথ বেচে নেয়। মেহ্লা অং মার্মা শেষ পর্যন্ত মেয়েটির ছবি নগ্ন ছবির সাথে কাটপিস করে তার নামে ফেইসবুকে ভূয়া আইডি খোলে।

উক্ত আইডি থেকে মেলাহ্লা অং মার্মা মেয়ের কাটপিচ করা কিছু উলঙ্গ ছবি পোষ্ট করে তার পরিবার ও তাকে সামাজিক ভাবে হেয় প্রতিপন্ন করে তুলে। নিরুপায় হয়ে ১৩ জুন মেয়ের বাবা মং চিং মার্মা(৪৫) লামা থানায় মামলা করলে একই দিন বিকেলে লামা থানার পুলিশ অভিযুক্ত যুবককে লামা মাতামুহুরী কলেজ থেকে আটক করে। একই দিন ১৩ জুন সোমবার লামা উপজেলা নির্বাহী ম্যাজিষ্ট্রেট আদালতে অভিযুক্তকে তোলা হলে নির্বাহী ম্যাজিষ্ট্রেট সকল স্বাক্ষী প্রমানাদি দেখে আসামীর স্বীকারুক্তি মূলে আসামীকে ৬ মাস বিনাশ্রম কারাদন্ড দিয়ে বান্দরবান জেল হাজতে প্রেরণ করে।

উত্যক্তকারী মেহ্লা অং মার্মা লামা মাতামুহুলী কলেজের এইচএসসি ২য় বর্ষের ছাত্র আর পিপিনু মার্মা বান্দরবান সরকারী মহিলা কলেজের এইচএসসি প্রথম বর্ষের ছাত্রী।

এ ব্যপারে লামা উপজেলা নির্বাহী অফিসার ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট খালেদ মাহমুদ বলেন, ইভটিজিং এর অভিযোগ প্রমাণ হওয়ায় মোবাইল কোর্ট আইনের ইভটিজিং প্রতিরোধ আইন ৫০৯ ধারায় আসামী মেহ্লা অং কে ৬ মাসের বিনাশ্রম কারাদন্ড প্রদান করা হয়।






মন্তব্য চালু নেই