মেইন ম্যেনু

কাউন্টির অভিষেকেই মোস্তাফিজের ৪ উইকেট

ইংলিশ কাউন্টি ক্রিকেটে অভিষেক ম্যাচেই বাজিমাত করেছেন কাটার মাস্টার মোস্তাফিজ। ন্যাটওয়েস্ট টি-টোয়েন্টি ম্যাচে ৪ ওভার বোলিং করে ২৩ রান দিয়ে ৪টি উইকেট তুলে নিয়েছেন ‘দ্য ফিজ’। কাটার মাস্টারের বোলিং জাদুতে এসেক্সের বিপক্ষে ২৪ রানের জয় পেয়েছে সাসেক্স।

ম্যাচে বোলিং ছাড়াও দুর্দান্ত একটি ক্যাচও নিয়েছেন বাংলাদেশের বিস্ময় বালক। নজর কাড়া পারফরমেন্সের জন্য ম্যান অব দ্য ম্যাচ হয়েছেন মোস্তাফিজ।

ন্যাট ওয়েস্ট টি-২০ ব্লাস্টের অভিষেক ম্যাচেই সেই চেনা রূপেই দেখা দিলেন ফিজ। টুর্নামেন্টটিতে খেলা ৮টি ম্যাচের মধ্যে মাত্র দ্বিতীয় এই জয়ে পয়েন্ট টেবিলের চতুর্থ স্থানে উঠে এলো সাসেক্স।

ম্যাচ শেষে মোস্তাফিজ বন্দনায় মুখর হলেন অধিনায়ক লিউক রাইট। “মোস্তাফিজ একজন বিশেষ ধরনের বোলার। এত ঝামেলা সত্যেও তাকে এখানে নিয়ে আসতে এত সময় ও প্রচেষ্টার প্রতিদান দিয়েছে সে।”

বল হাতে কৃপণ মোস্তাফিজের ওভারপ্রতি মাত্র ৫.৭৫ রান দেন। যেখানে অন্যান্যদের বোলারদের ইকোনমি রেট ৯-১০ রান। তিনি বোলিংও করেন সেই সময় যখন রান তোলার জন্য মরিয়া হয়ে উঠেন ব্যাটসম্যানরা। ৬, ১৬, ১৮ ও ২০তম ওভারটি করতে এসে নিজের অসামান্য বোলিং প্রতিভার স্বাক্ষর রাখেন তিনি। দুর্বোধ্য এই বৈচিত্রময় বোলার ১৪টিই ডট বল দেন।

ষষ্ঠ ওভারে প্রথমে আক্রমণে এসে ৩টি ডট বলসহ ৪ রান দেন মাত্রই ২০ বছর বয়সী এই বিস্ময়। এরপর ১৬ তম ওভারে বল করতে এসেও ৪ টি ডট বলসহ মাত্র দুই রান দেন। প্রথম উইকেটও লাভ করেন এই ওভারেই। এরপর ১৮ তম ওভারে এসে দুই উইকেট তুলে নেন ফিজ। ৩টি ডট বল দেন ওভারটিতে। এরপর ম্যাচের শেষ ওভারটি করতে এসেও ৪টি ডট বল দিয়ে ১ উইকেট পান।

প্রথম ব্যাট করতে নেমে ক্রিস জর্দানের ২১ বলে অপরাজিত ৪৫ রান, ফিলিপ সল্টের ৩৩ রান এবং লিউক রাইটের ৩২ রানের সুবাদে ৬ উইকেট হারিয়ে ২০০ রানের বড় সংগ্রহ পায় সাসেক্স। এসেক্সের রবি বোপারা ২ উইকেট লাভ করেন।

২০১ রানের জবাবে ব্যাট করতে নেমে ৮ উইকেট হারিয়ে ১৭৬ রান করে এসেক্স। ড্যানিয়েল লরেন্স ৩৬ রান এবং রবি বোপারা ৩২ রান করেন।






মন্তব্য চালু নেই