মেইন ম্যেনু

কাউন্সিলে বাধার অভিযোগ ফখরুলের

বিএনপির ষষ্ঠ কাউন্সিল আয়োজনে বাধা-বিপত্তি আসছে জানিয়ে দলের ভারপ্রাপ্ত মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেছেন, তবুও কাউন্সিল সফল করতে তার দল চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে।

বুধবার বিকেলে রাজধানীর পুরানা পল্টনে বাংলাদেশ ফটো জার্নালিস্ট অ্যাসোসিয়েশন মিলনায়তনে এক দোয়া মাহফিলে তিনি বলেন, ‘প্রচুর বাধা-বিপত্তি উপেক্ষা করে বিএনপি কাউন্সিল করতে যাচ্ছে। এতো বাধা-বিপত্তির পরেও অদম্য আগ্রহ ও উৎসাহ নিয়ে বিএনপির তৃণমূল পর্যায় থেকেও কাউন্সিলকে সফল করার চেষ্টা চলছে। সুতরাং কাউন্সিল সফল হবেই।’

বিএনপির দুঃসময় ও কঠিন পরীক্ষার মধ্য দিয়ে চলেছে জানিয়ে মির্জা ফখরুল বলেন, ‘অত্যন্ত সুপরিকল্পিতভাবে বিএনপিকে নির্মুল করার চেষ্টা চলছে। বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার বিরুদ্ধে প্রায় ১২টি মামলা এবং সিনিয়র ভাইস চেয়ারম্যান তারেক রহমানের বিরুদ্ধে ৩১টি মিথ্যা মামলা দেওয়া হয়েছে।’

বিএনপিকে জনগণের এবং অদম্য রাজনৈতিক দল হিসেবে অভিহিত করে তিনি বলেন, ‘শত চেষ্টা করেও এই দলকে দমন ও ধ্বংস করা যাবে না। বিএনপিকে যতবারই ধ্বংস করার চেষ্টা হয়েছে, ততবারই সেই ধ্বংসস্তুপ থেকে ফিনিক্স পাখির মতো উঠে দাঁড়িয়েছে দলটি।’

বিএনপির প্রয়াত মহাসচিব খোন্দকার দেলোয়ার হোসেনের পঞ্চম মৃত্যুবার্ষিকী উপলক্ষে ‘খোন্দকার দেলোয়ার হোসেন স্মৃতি পরিষদ’এ অনুষ্ঠানের আয়োজন করে।

তৃনমুল থেকে কেন্দ্র পর্যন্ত সবার নামেই কম-বেশি মামলা রয়েছে দাবি করে বিএনপির ভারপ্রাপ্ত মহাসচিব বলেন, ‘দলের শীর্ষ নেতাদের মধ্যে এমন কেউ নেই, যাদের নামে ১০ থেকে ৯০টির অধিক মামলা নেই। এটা শুধু শীর্ষ নেতাদের বিরুদ্ধেই নয়, গ্রাম ও ইউনিয়ন পর্যায়েও নেতাদের বিরুদ্ধে মামলা, গ্রেফতার, হামলা, নির্যাতন ও হত্যা করে বিএনপিকে ধ্বংস করার চেষ্টা চালানো হচ্ছে।’

খোন্দকার দেলোয়ার হোসেনের রাজনৈতিক জীবনের স্মৃতিচারণ করে বিএনপির ভারপ্রাপ্ত মহাসচিব বলেন, ‘তিনি আমাদের যে পথ দেখিয়েছেন সেই পথ অনুসরণ করতে হবে। আপোষহীন ও অনমনরীয় থেকে মৌলিক ও ভোটের অধিকারকে ফিরিয়ে আনতে জনগণকে সঙ্গে নিয়ে দেশ ও মাটির জন্য চলমান সংগ্রামকে অব্যাহত রাখতে হবে।’

অনুষ্ঠানে বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান আব্দুল্লাহ আল নোমানও অভিযোগ করেন, কাউন্সিল ও সম্মেলন নিয়ে নানা ষড়যন্ত্র হচ্ছে।

তিনি বলেন, ‘কাউন্সিলের ভেন্যু নিয়ে ষড়যন্ত্র হচ্ছে। আজ পর্যন্ত আমাদের সোহরাওয়ার্দী উদ্যানের অনুমতি দেয়া হয়নি। এখনও অনুমতির অপেক্ষায় রয়েছি।’

কবি আল মুজাহিদীর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রাক্তন উপাচার্য এমাজউদ্দীন আহমদ, বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান বেগম সেলিমা রহমান, যুববিষয়ক সম্পাদক সৈয়দ মোয়াজ্জেম হোসেন আলাল, সহ-দপ্তর সম্পাদক কৃষিবিদ শামীমুর রহমান শামীম প্রমুখ বক্তব্য রাখেন।






মন্তব্য চালু নেই