মেইন ম্যেনু

কানাডায় ভয়াবহ দাবানল : পুড়ছে শহর, জরুরি অবস্থা জারি

ভয়াবহ দাবানল অব্যাহত থাকায় কানাডার আলবের্টা প্রদেশে জরুরি অবস্থা জারি করা হয়েছে। এ প্রদেশের ফোর্ট ম্যাকমুরে জেলায় দানবীয় দাবানল ছড়িয়ে পড়ায় শহর থেকে ৮৮ হাজার লোককে নিরাপদ স্থানে সরিয়ে নেওয়া হয়েছে।

কর্মকর্তারা জানিয়েছেন, বিনাশী এই দাবানলে শহরের অধিকাংশ অঞ্চল ক্ষতিগ্রস্ত হতে পারে এবং আগামী ২৪ ঘণ্টা সবকিছু খুবই বিপজ্জনক অবস্থার মধ্যে দিয়ে যাবে।

বিবিসি অনলাইনের এক খবরে বৃহস্পতিবার এ তথ্য জানানো হয়েছে।

রোববার দাবানলের সূত্রপাত হয়। সেই থেকে বনাঞ্চল ও আবাসিক অঞ্চল পুড়ে চলেছে। কর্মকর্তারা জানিয়েছেন, দ্রুত ছড়িয়ে পড়ছে দাবানল। এরই মধ্যে ১ হাজার ৬০০ অবকাঠামো ভস্মীভূত হয়েছে।

আলবের্টার ইতিহাসে এত বড় দাবানল কখনো হয়নি। তা ছাড়া, একসঙ্গে ৮৮ হাজার লোককে সরিয়ে নেওয়ার ঘটনাও এ প্রদেশে আগে কখনো ঘটেনি। পার্শ্ববতী তেল কোম্পানিগুলো উৎপাদন কমাতে বাধ্য হয়েছে। কিছু কোম্পানি তাদের পাইপলাইনের সংযোগ বিচ্ছিন্ন করে দিয়েছে।

তবে দাবানল ভয়াবহ আকার নিলেও এতে কোনো হতাহতের খবর এখনো পাওয়া যায়নি। আলবের্টার মুখ্যমন্ত্রী র‌্যাচেল নটলে হেলিকপ্টারযোগে জ্বলন্ত ফোর্ট ম্যাকমুরে ঘুরে দেখেছেন। তিনি জানিয়েছেন, শহরের ওপর দিয়ে আগুন ক্রমেই উত্তর ও পূর্ব দিকে ছড়িয়ে যাচ্ছে।

পূর্বাভাস মতো বাতাসের যদি গতি থাকে, তাহলে দাবানল ছড়িয়ে পড়বে থিকউড ও টিমবারলিয়ার লোকালয়ে। বিমানবন্দরের আশপাশেও আগুন ছড়িয়ে যাবে।

আলবের্টার জরুরি ব্যবস্থাপনা সংস্থার নির্বাহী পরিচালক স্কট লং বলেছেন, ‘অসময়ের ঘড়ি ধীরে চলে। আশঙ্কা করছি, আমরা শহরের একটি বড় অংশ হারাতে যাচ্ছি।’

কর্মকর্তারা আরো জানিয়েছেন, ১০ হাজার হেক্টর এলাকায় দাবানল ছড়িয়ে পড়েছে। ১০০ অগ্নিনির্বাপণ কর্মী তা নিয়ন্ত্রণে নিরবচ্ছিন্ন কাজ করে যাচ্ছেন। তবে শুষ্ক আবহাওয়া ও ঝোড়ো বাতাস আগুন দ্রুত ছড়িয়ে পড়তে সাহায্য করছে, যে কারণে দাবানল নিয়ন্ত্রণে সময় লাগছে।

কানাডার প্রধানমন্ত্রী জাস্টিন ট্রুডো জানিয়েছেন, প্রয়োজনে দাবানল নিয়ন্ত্রণে সামরিক হেলিকপ্টার পাঠাবেন তিনি।

পোর্ট ম্যাকমুরে শহরটি পুরুষ সংখ্যাগরিষ্ঠ। এখানে তিনজন পুরুষের বিপরীতে একজন নারী বাস করে।






মন্তব্য চালু নেই