মেইন ম্যেনু

কানের ইনফেকশনের কার্যকরী ৫টি প্রতিকার

সাধারণত বড়দের চেয়ে ছোটদেরই কানের ইনফেকশনে ভুগতে দেখা যায় বেশি। বিভিন্ন কারণে কানের ইনফেকশন হতে পারে যেমন- ভাইরাস বা ব্যাকটেরিয়ার কারণে, ময়লা জমলে, আর্দ্রতার জন্য ও অ্যালার্জির কারণে। এয়ার ইনফেকশনের উপসর্গগুলো হচ্ছে- কানে ব্যথা, কানে টান অনুভব করা, ঘুমের সমস্যা, মাথাব্যথা, শব্দ কম শোনা, খুব বেশি জ্বর আসা, কানের ছিদ্র দিয়ে রস বাহির হওয়া, ডায়রিয়া ও বমি হওয়া।

অন্ত কর্ণ, মধ্যকর্ণ ও বহিঃকর্ণ এই ৩টি অংশ নিয়ে কান গঠিত। কানের তিনটি অংশের যেকোনটিতেই সংক্রমণ হতে পারে। অন্তকর্ণের সংক্রমণ মারাত্মক ধরণের হয়। কানের পর্দা ক্ষতিগ্রস্থ হওয়া এবং জটিলতা প্রতিরোধের জন্য নিরাময়ের ব্যবস্থা করাটা গুরুত্বপূর্ণ। চিকিৎসা না করা হলে এটি পুনরায় হতে থাকবে এবং বধিরতা ও সৃষ্টি করতে পারে। তাই চিকিৎসকের শরণাপন্ন হওয়া জরুরী। তবে তাৎক্ষণিকভাবে উপসর্গের উপশম করা যায় প্রাকৃতিক কিছু উপাদান ব্যবহার করে। চলুন তাহলে কানের ইনফেকশনের ঘরোয়া প্রতিকারগুলো সম্পর্কে জেনে নিই।

১। লবণ

সম্ভবত লবণই হচ্ছে কানের ইনফেকশনের সবচেয়ে সহজলভ্য প্রাকৃতিক প্রতিকার। একটি পাত্রে এক কাপ লবণ অল্প তাপে কয়েক মিনিট গরম করুন। একটি পরিষ্কার কাপড়ে এই গরম লবণ নিয়ে কাপড়টি একটি রাবার ব্যান্ড দিয়ে পেঁচিয়ে নিন। কাপড়ের এই পুঁটুলিটি আক্রান্ত কানে লাগিয়ে ৫-১০ মিনিট চেপে ধরে রাখুন। দিনে কয়েকবার এটি ব্যবহার করতে পারেন। তাপের ফলে কানের ভেতর থেকে তরল বের হয়ে আসবে এবং ব্যথা ও ফোলা কমবে। লবণের পরিবর্তে চাল ও ব্যবহার করতে পারেন।

২। অলিভ অয়েল

কানের ইনফেকশন বা কানের ময়লা বৃদ্ধি পেলে কানের ভেতরের ইউস্টেশিয়ান টিউব ব্লক হয়ে যায়। এই ব্লকেজ খুব সহজেই দূর করা যায় অলিভ অয়েল ব্যবহার করে। অলিভ অয়েল গরম করে কানের ভেতরে কয়েক ফোঁটা দিন। তেল যেন খুব বেশি গরম না হয় সেটি লক্ষ রাখুন। কানের ভেতরের শক্ত হয়ে যাওয়া ময়লা নরম হয়ে বাহির হয়ে আসবে।

৩। রসুন

রসুনের ব্যাকটেরিয়া নাশক ও ব্যথা কমানোর বৈশিষ্ট্য আছে। কয়েকটি রসুনের কোয়া থেঁতলে নিয়ে এর রস বের করে নিন। আক্রান্ত কানে কয়েক ফোঁটা রসুনের রস দিন। এতে দ্রুত উপসর্গের প্রকোপ কমবে। দিনে তিন বার এর পুনরাবৃত্তি করুন। এই প্রক্রিয়াটির মাধ্যমে কানের ইনফেকশন ভালো হয়।

৪। তুলসি

কয়েকটি তুলসি পাতা পিষে এর রসটুকু কানের চারপাশে ও কানের ভেতরে দিন। তবে ইয়ার ক্যানেলে যেন না যায় সেদিকে খেয়াল রাখতে হবে।

৫। অ্যাপেল সাইডার ভিনেগার

ছত্রাকজনিত কানের সংক্রমণ প্রতিরোধে উপকারি অ্যাপেল সাইডার ভিনেগার। সমপরিমাণ অ্যাপেল সাইডার ভিনেগার ও পানি মিশিয়ে এই মিশ্রণটিতে একটি তুলার বল ভিজিয়ে নিন। এবার এই তুলার বলটি আক্রান্ত কানে প্লাগের মত লাগিয়ে ৫ মিনিট রাখুন। কটন বলটি সরিয়ে কানের বিপরীত পাশে ফিরে শুয়ে থাকলে তরল বাহির হয়ে যাবে। তারপর হেয়ার ড্রায়ার দিয়ে যতোটা সম্ভব শুকিয়ে ফেলুন কান।প্রিয়.কম






মন্তব্য চালু নেই