মেইন ম্যেনু

কারাগার থেকে মুক্তি পেলেন রাজন হত্যার ৩ আসামি

সিলেট কেন্দ্রীয় কারাগার থেকে মুক্তি পেয়েছেন বহুল আলোচিত শিশু সামিউল আলম রাজন হত্যার তিন আসামি।

সোমবার রাতে তাদের মুক্তি দেয়া হয়েছে বলে জানিয়েছেন সিলেট কেন্দ্রীয় কারাগারের জেল সুপার মো. ছগির মিয়া।

ছগির মিয়া জানান, সোমবার বিকেলে রাজন হত্যার রায়ের আদেশ কারাগারে পৌঁছায়। এর পর রাতে ওই মামলার খালাসপ্রাপ্ত আসমত উল্লাহ, ফিরোজ আলী ও রুহুল আমিনকে মুক্তি দেয়া হয়।

এদিকে, কারাগার থেকে বের হয়ে ফিরোজ আলী ও আসমত উল্লাহ সাংবাদিকের বলেন, তারা নির্দোষ ছিলেন। কিন্তু ঘটনাটি দেখার কারণে তারা দোষী হয়ে চার মাস জেল খেটেছেন।

তারা বলেন, আদালত তাদের ন্যায়বিচার করেছেন। ন্যায়বিচার পাওয়ার জন্য তারা জেলে বসে আল্লার কাছে প্রার্থনা করতেন বলে জানিয়েছেন তারা।

এর আগে গত রোববার বহুল আলোচিত রাজন হত্যা মামলার রায় ঘোষণা করা হয়। সিলেট মহানগর দায়রা জজ আদালতের বিচারক আকবর হোসেন মৃধা এ রায় ঘোষণা করেন। রায়ে প্রধান হোতা কামরুলসহ ৪ জনের ফাঁসি, ১ জনের যাবজ্জীবন, ৩ জনের ৭ বছরের কারাদণ্ড, ২ জনের ১ বছরের কারাদণ্ড এবং ৩ জনকে বেকসুর খালাস দেয়া হয়।

এর আগে গত ২৫ অক্টোবর রাজন হত্যা মামলায় আসামি যাচাই-বাছাই শেষ হয় এবং যুক্তিতর্ক উপস্থাপন শুরু হয়। ২৬ অক্টোবরও চলে যুক্তিতর্ক উপস্থাপন। পরদিন আদালত রায়ের তারিখ ধার্য করেন।

গত ৮ জুলাই সিলেট নগরীর কুমারগাঁওয়ে শিশু সামিউল আলম রাজনকে নির্মমভাবে নির্যাতন করে হত্যা করা হয়। নির্যাতনের ভিডিওচিত্র ইন্টারনেটে ছড়িয়ে পড়লে দেশ-বিদেশে ব্যাপক সমালোচনার ঝড় ওঠে। প্রতিবাদে জ্বলে হয়ে ওঠে গোটা দেশ। ঘটনার তীব্রতায় বাধ্য হয়ে নড়েচড়ে বসে প্রশাসন। জনতার স্বতঃস্ফূর্ত সহায়তায় একে একে গ্রেপ্তার হয় রাজনের ঘাতকরা।বাংলামেইল






মন্তব্য চালু নেই