মেইন ম্যেনু

কারিগরিতে পড়ে সরকারি চাকরিতে বাঁধা নেই : হাইকোর্ট

আপনি কি কারিগরি শিক্ষা বোর্ড অধিনে পড়ছেন? চিন্তা করছেন সরকারি চাকরি হবে কি না। যেহেতু মেডিক্যাল টেকনোলোজিস্টরা আন্দোলন করছে। না ভাববেন না আপনাদের চাকরির পক্ষেই রায় দিয়েছেন আদালত।

এই বিষয়ে দায়ের করা চারটি আবেদন নিষ্পত্তি করে আজ মঙ্গলবার হাইকোর্টের বিচারপতি গোবিন্দ চন্দ্র ঠাকুর ও আবু তাহের মো. সাইফুর রহমানের ডিভিশন বেঞ্চ কারিগরি শিক্ষার্থীদের পক্ষেই রায় দেন।

রায়ে আদালত বলেন, রাষ্ট্রীয় চিকিৎসা অনুষদের পাস করা শিক্ষার্থীরাই শুধু এই পদে আবেদন করতে পারবেন তা আইনানুযায়ী গ্রহণযোগ্য নয়। রাষ্ট্রীয় চিকিৎসা অনুষদের পাশাপাশি কারিগরি শিক্ষা বোর্ড থেকে উত্তীর্ণরাও সম-অধিকারের ভিত্তিতে সরকারি মেডিকেল টেকনোলজিস্ট পদে আবেদন করতে পারবেন। চাকরি প্রতিযোগিতামূলক পরীক্ষায় উত্তীর্ণ হলে কারিগরি শিক্ষা বোর্ডের শিক্ষার্থীরাও এসব পদে চাকরি করতে পারবেন।

এর আগে কেবল রাষ্ট্রীয় চিকিৎসা অনুষদের উত্তীর্ণ শিক্ষার্থীরাই মেডিকেল টেকনোলজিস্ট পদে আবেদন করতে পারতেন। ২০১৩ সালের ১৮ জানুয়ারি স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের ওই পদে প্রকাশিত চাকরির বিজ্ঞপ্তিতে উল্লেখ করা হয়, রাষ্ট্রীয় চিকিৎসা অনুষদের উত্তীর্ণরাই কেবল আবেদন করতে পারবেন। এই বিজ্ঞপ্তির বৈধতা চ্যালেঞ্জ করে হাইকোর্টে রিট করেন রাজীব কুমার মণ্ডল, মো. নাজমুল হক, আবু জাফর মো. সালেহ প্রমুখ।

এই আবেদনের প্রাথমিক শুনানি নিয়ে ২০১৩ সালেই হাইকোর্ট বিজ্ঞপ্তি স্থগিতের পাশাপাশি তা কেন বাতিল ঘোষণা করা হবে না সেই মর্মে রুল জারি করেন। এই রুলের ওপর শুনানি শেষে আজ রায় ঘোষণা করা হয়।

রিট আবেদনকারীদের পক্ষে ব্যারিস্টার শফিক আহমেদ ও ব্যারিস্টার মাহমুদ শফিক শুনানি করেন।

পরে এ বিষয়ে ব্যারিস্টার শফিক আহমেদ সাংবাদিকদের বলেন, হাইকোর্ট এই রায়ে চাকরি দরখাস্ত করার ক্ষেত্রে সমানাধিকার নিশ্চিত করতে বলেছেন। এর ফলে কারিগরি শিক্ষা বোর্ড থেকে পাস করা শিক্ষার্থীরা মেডিকেল টেকনোলজিস্ট পদে আবেদন করার সুযোগ পাবে।






মন্তব্য চালু নেই