মেইন ম্যেনু

কালই ২২ বছরের দুঃখ ঘুচবে ভারতের?

সেই ১৯৯৩ সালে শ্রীলঙ্কার মাটিতে শেষবার কোনো টেস্ট সিরিজ জিতেছিল ভারত। সেবার ভারতের নেতৃত্বে ছিলেন মোহাম্মদ আজহারউদ্দিন। এরপর শচীন টেন্ডুলকার, সৌরভ গাঙ্গুলি, অনিল কুম্বলে, মহেন্দ্র সিং ধোনি- এই চারজনের নেতৃত্বে শ্রীলঙ্কার মাটিতে চারটি টেস্ট সিরিজ খেলে কখনোই সিরিজ জিততে পারেনি ভারত। তবে ভারতীয়দের ২২ বছরের অপেক্ষার পালা বুঝি এবার শেষ হতে যাচ্ছে বিরাট কোহলির হাত ধরে।

কলম্বোয় সিরিজ নির্ধারণী তৃতীয় টেস্টে ভারতের দেওয়া ৩৮৬ রানের লক্ষ্যে ব্যাট করতে নেমে বেশ বিপদে আছে শ্রীলঙ্কা। চতুর্থ দিনের খেলা শেষে লঙ্কানদের সংগ্রহ ৩ উইকেটে ৬৭ রান। জয়ের জন্য শেষ দিনে আরো ৩১৯ রান করতে হবে তাদের। আর ভারতের চাই ৭ উইকেট। বৃষ্টির কারণে এই টেস্টে বেশ কিছু ওভার নষ্ট হওয়ায় শেষ দিনে খেলা হবে ৯৮ ওভার। আগামীকাল মঙ্গলবার এই ৯৮ ওভারের মধ্যে লঙ্কানদের বাকি ৭ উইকেট তুলে নিয়ে ২২ বছরের দুঃখ ঘুচতে পারবে কোহলির দল?

কলম্বোর সিংহলিজ স্পোর্টস ক্লাব মাঠে অনুষ্ঠিত এই টেস্টে দুই দলের কারোরই ইনিংসের শুরুটা ভালো হয়নি। ভারত তাদের প্রথম ইনিংসে মাত্র ১৪ রানেই হারায় ২ উইকেট। শেষমেশ চেতেশ্বর পূজারার হার না মানা ১৪৫ রানের সুবাদে ৩১২ রান করে তারা। জবাবে নিজেদের প্রথম ইনিংসে ৪৭ রানেই ৬ উইকেট হারায় শ্রীলঙ্কা। শেষমেশ কোনোমতে ২০১ রান করে তারা। প্রথম ইনিংসে ১১১ রানের লিড নিয়েও দ্বিতীয় ইনিংসের শুরুতে টালমাটাল ভারত, ৭ রানেই খোয়ায় ৩ উইকেট। তৃতীয় দিনের খেলা শেষে ভারতের সংগ্রহ ছিল ৩ উইকেটে ২১ রান। সেখান থেকে সোমবার চতুর্থ দিনের খেলা শুরু করেন দুই অপরাজিত ব্যাটসম্যান বিরাট কোহলি ও রোহিত শর্মা।

তবে দলীয় ৬৪ রানে বিদায় নেন ভারতীয় অধিনায়ক। কোহলির বিদায়ের পর স্টুয়ার্ট বিনির সঙ্গে ৫৪ রানের জুটি গড়েন রোহিত। তবে ফিফটি তুলে নিয়ে ব্যক্তিগত ৫০ রানেই রোহিত বিদায় নেন ধাম্মিকা প্রসাদের বলে। শেষ পর্যন্ত স্টুয়ার্ট বিনির ৪৯, নামান ওঝার ৩৫, অমিত মিশ্রর ৩৯ ও রবিচন্দ্রন অশ্বিনের ৫৮ রানের সুবাদে সবকটি উইকেট হারিয়ে ২৭৪ রান করতে পারে ভারত। ফলে শ্রীলঙ্কার সামনে লক্ষ্য দাঁড়ায় ৩৮৬ রানের। শ্রীলঙ্কার হয়ে ৪টি করে উইকেট নেন ধাম্মিকা প্রসাদ ও নুয়ান প্রদীপ।

৩৮৬ রানের বড় লক্ষ্যে ব্যাট করতে নেমে ভারতের দেখানো পথেই হাঁটে শ্রীলঙ্কা। ইশান্ত শর্মার করা ইনিংসের শেষ বলে সাজঘরে ফেরেন উপুল থারাঙ্গা। প্রথম ইনিংসে ৪ রান করার পর এই ইনিংসে ‘ডাক’ মারেন এই বাঁহাতি। দলীয় ১ রানে থারাঙ্গার বিদায়ের পর ২ রানে সাজঘরের পথ ধরেন দিমুথ করুণারত্নে। তাকে নামান ওঝার গ্লাভসবন্দি করান উমেশ যাদব।

এরপর দিনেশ চান্দিমাল কিছুটা প্রতিরোধ গড়ার চেষ্টা করেন, কিন্তু তিনিও বিদায় নেন দলীয় ২১ রানে। ইশান্তের বলে কোহলির হাতে ধরা পড়েন চান্দিমাল। এরপর অধিনায়ক অ্যাঞ্জেলো ম্যাথুসকে নিয়ে দিন শেষ করেন এক প্রান্ত আগলে রাখা ওপেনার কৌশল সিলভা। কৌশল ২৪ ও ম্যাথুস ২২ রান নিয়ে আগামীকাল পঞ্চম ও শেষ দিনের খেলা শুরু করবেন।






মন্তব্য চালু নেই