মেইন ম্যেনু

ধর্ষককে ধরতে পুরস্কার ঘোষণা

কালিগঞ্জে শিশু ধর্ষণস্থল পরিদর্শনে পুলিশ সুপার

সাতক্ষীরার কালিগঞ্জের কুশলিয়ায় তৃতীয় শ্রেণির শিক্ষার্থীর (১০) ধর্ষককে ধরিয়ে দেয়ার জন্য ২০ হাজার টাকা পুরস্কার ঘোষণা করেছেন সাতক্ষীরার পুলিশ সুপার চৌধুরী মঞ্জুরুল কবির (পিপিএম)।
মঙ্গলবার বিকেলে ঘটনাস্থল পরিদর্শনকালে তিনি এই ঘোষণা দেন। ঘটনাস্থলে পৌছে ধর্ষিতা শিশু, তার পিতা, পরিবারের সদস্য, স্থানীয় বিদ্যালয়ের শিক্ষক, ইউপি সদস্যসহ এলাকার ব্যক্তিবর্গের সাথে মতবিনিময় করেন এবং সকলের সহযোগিতা কামনা করেন।

এসময় তিনি দায়িত্বে অবহেলার জন্য ওই ইউনিয়নের দায়িত্বপ্রাপ্ত বিট অফিসার কালিগঞ্জ থানার উপ-পরিদর্শক (এসআই) শহিদুল্যাহ ও স্থানীয় পুলিশিং কমিটির সদস্যদের তিরস্কার করেন।

শিশু ধর্ষণের সাথে জড়িত লম্পট রফিকুল ইসলাম ওরফে মেঝ বাবুকে গ্রেপ্তারপূর্বক কঠোর শাস্তি প্রদানে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণের আশ্বাস দেন তিনি। এর আগে সোমবার বিকেলে সাতক্ষীরার অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মীর মোদাচ্ছের হেসেন ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন।

প্রসঙ্গত, শনিবার জাতীয় শোক দিবসে অনুষ্ঠানে যোগদান শেষে দুপুরের দিকে স্কুলের সম্মুখে অবস্থিত রফিকুল ইসলমের কসমেটিক্সের দোকানে গেলে সে ওই শিশুটিকে দোকানের ভিতরে নিয়ে জোরপূর্বক ধর্ষণ করে। ঘটনাটি ব্যাপক ভাবে জানাজানি হলে রোববার সন্ধ্যায় শিশুটির দিনমজুর পিতা ধর্ষিতা শিশুকে নিয়ে থানায় এসে মামলা দায়ের করেন। (মামলা নম্বর: ১৯, তারিখ: ১৬/০৮/১৫।) সোমবার সকালে শিশুটিকে ডাক্তারী পরীক্ষা সম্পন্ন হয়। ধর্ষক রফিকুল ইসলামকে গ্রেফতার ও ফাঁসির দাবিতে সোমবার সকাল ১১ টায় এলাকার বিভিন্ন স্কুল, কলেজ,মাদ্রাসার শিক্ষার্থী, অভিভাবকসহ হাজার হাজার মানুষ বিক্ষোভ মিছিল ও মানবন্ধন কর্মসূচি পালন করে। রফিকুল ইসলাম কুশলিয়া গ্রামের সৈয়দার রহমান কালুর ছেলে।






মন্তব্য চালু নেই