মেইন ম্যেনু

কালো মাইকেল জ্যাকসনের চরিত্রে সাদা অভিনেতা!

সদ্য অস্কার মনোনয়নকে ঘিরে সাদা-কালোর যে বর্ণবাদী বিতর্ক উঠেছে সেই আগুনে যেন আরো উত্তাপ ছড়ালো সম্প্রতি পপস্টার মাইকেল জ্যাকসনের চরিত্রে একজন সেতাঙ্গকে অভিনয়ের কথা জানিয়ে। যদিও অস্কার মনোনয়নে শেতাঙ্গদের প্রাধান্য না থাকতো, হয়তো এমন বিতর্ক এই সময়ে উঠতো না!

জানা গেছে, সম্প্রতি অস্কারে মনোনয়নে শেতাঙ্গদের প্রাধান্যকে কেন্দ্র করে চারদিকে যে বর্ণবাদী বিতর্ক চলচে, ঠিক এই মুহূর্তে সেই বিতর্ককে আরো চাঙ্গা করে দিল প্রয়াত পপস্টার মাইকেল জ্যাকসনের আত্মজীবনী চরিত্রে একজন শেতাঙ্গ অভিনেতাকে দিয়ে অভিয়ের ঘোষণা দিয়ে।

ব্রিটিশ টেলিভিশনের জন্য নির্মিতব্য ‘এলিজাবেথ, মাইকেল অ্যান্ড মার্লন’ ছবিতে মাইকেল জ্যাকসনের রূপে দেখা যাবে একজন শেতাঙ্গ অভিনেতাকে। যার নাম জোসেফ ফাইনস। শেক্সপিয়র ইন লাভ এবং আমেরিকান অসংখ্য হরর ছবিতে অভিনয় করেছেন তিনি। পপসম্রাট মাইকেল জ্যাকসনের চরিত্রে শেতাঙ্গ এই অভিনেতাকেই দেখা যাবে।

যদিও শেতাঙ্গ পুরুষ হয়েও মাইকেল জ্যাকসনের চরিত্রে অভিনয়ের প্রস্তাব পেয়ে তিনিও কিছুটা বিস্মিত। এমন খবরই তিনি জানিয়েছেন মিডিয়াকে।

কিন্তু মাইকেলের চরিত্রে শেতাঙ্গ শিল্পীকে নির্বাচনকে কেন্দ্র করে ফুঁসে উঠেছে বিশ্ব মিডিয়া ও শিল্পীরা। তাদের দাবি কালোদের সাথে শুধু হলিউডে নয়, বরং ব্রিটেনেও শেতাঙ্গদের প্রাধান্য দেয়া হচ্ছে। যা

মাইকেল জ্যাকসনের শ্বেতী রোগ ছিল বিধায় একসময় তিনি ত্বকের রঙ পরিবর্তন করেছিলেন। কিন্তু তিনি কখনই শেতাঙ্গ ছিলেন না।

একজন কৃষ্ণাঙ্গ মানুষের চরিত্রে কেন শেতাঙ্গ অভিনেতা নেয়া হবে, এবং এমন পরিস্থিতে যখন অস্কারে শেতাঙ্গদের প্রভাব নিয়ে চারদিকে সমালোচনার ঝড় বইছে! কেন কৃষ্ণাঙ্গ মানুষের চরিত্রে শেতাঙ্গ অভিনেতা নেয়া হল বিষয়টি চ্যানেলের কাছে জানতে চাইলে তারা বলেন, আমরা নির্মাতা, প্রযোজক এমনকি সকলের স্বাধীনতায় বিশ্বাসী। শিল্পী নির্বাচনসহ সব বিষয়ই আসলে তাদের বিবেচনা। আমরা কখনোই সেখানে হস্তক্ষেপ করি না।

উল্লেখ্য,‘এলিজাবেথ, মাইকেল অ্যান্ড মার্লন’ ছবিটির পোস্ট প্রডাকশনের কাজ চলছে। আর চলতি বছরেই প্রচার শুরু হবে ছবিটির। কমেডি ঘরানার এ ছবিতে এলিজাবেথ টেইলর ও মার্লন ব্র্যান্ডো চরিত্রে হাজির হচ্ছেন স্টকার্ড চ্যানিং ও ব্রায়ান কক্স। ছবিতে দেখা যাবে, নাইন-ইলেভেনের ঘটনাকে ঘিরে নিউইর্য়ক ত্যাগের পরিকল্পনা করেছেন এ তিন তারকা।






মন্তব্য চালু নেই