মেইন ম্যেনু

কাস্টমারদের কাছে মডেলদের নগ্ন ছবি পাঠিয়ে চলতো অবাধে দেহব্যবসা!

গোপন সূত্রে হানা দিয়ে বড়সড় মধুচক্রের আসর ফাঁস করল মুম্বই পুলিশ। ঘটনাস্থল থেকে এক উঠতি মডেলকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। পুলিশের প্রাথমিক অনুমান, সেই এই ব্যবসা চালাত। যদিও তাঁকে জিজ্ঞাসাবাদ শুরু করেছে পুলিশ। পশ্চিম মুম্বইয়ের ভারসোভা এলাকায় তল্লাশি চালিয়ে মধুচক্রের পর্দাফাঁস করে পুলিশ।

পুলিশ সূত্রে জানা গিয়েছে, প্রোডাকশন হাউসের আড়ালে রমরমিয়ে এই দেহব্যবসা চলত। গোপন সূত্রে খবর পেয়েই সেখানে হানা দেয় পুলিশ। পুলিশ জানতে পেরেছে, উঠতি মডেলদের বলিউডে কাজ পাইয়ে দেওয়ার প্রলোভন দেখাত ধৃত ওই মডেল। পরে তাদের দিয়ে দেহব্যবসার কাজে নামিয়ে দেওয়া হতো। বদলে কমিশন পেত ওই মডেল।

এখানেই শেষ নয়, পুলিশ জানতে পেরেছে, কাস্টমারদের কাছে মডেলদের পাঠানোর আগে তাঁদের মোবাইলে আগে পাঠানো হত মডেলদের ন্যুড ছবি। আর তা পছন্দ হলেই কেল্লা ফতে। রাত হলেই ওই সমস্ত কাস্টমারদের কাছে পৌঁছে যেতেন পছন্দ হওয়া মডেলেরা।

আর তা গোপন সূত্রে খবর পান পুলিশের উচ্চপদস্থ আধিকারিকরা। গত রবিবার গোপনে হানা দেয় ভারসোভা এলাকায়। সেখান থেকে ওই মডেলকে গ্রেফতার করে পুলিশ। ঘটনাস্থল থেকে উদ্ধার হয়েছে একটি ডায়েরি। তাতে অনেক উঠতি মডেলের নাম ও ছবি রয়েছে। ঘটনায় আরও কোনও বড় যোগাযোগ রয়েছে কিনা সেটা খতিয়ে দেখছে পুলিশ।






মন্তব্য চালু নেই