মেইন ম্যেনু

কিউইদের ৭ উইকেটে হারিয়ে ফাইনালে ইংল্যান্ড

টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের ষষ্ঠ আসরের প্রথম সেমিফাইনালে মুখোমুখি হয় ইংল্যান্ড ও নিউজিল্যান্ড।

দিল্লির ফিরোজ শাহ কোটলা স্টেডিয়ামে টসে জয়লাভ করেছেন ইংল্যান্ডের অধিনায়ক ইয়ান মরগান। তবে তিনি ব্যাট করতে আমন্ত্রণ জানান নিউজিল্যান্ডের অধিনায়ক কেন উইলিয়ামসনকে।

টস হেরে ব্যাটিংয়ে নেমে নির্ধারিত ২০ ওভারে ৮ উইকেটে ১৫৩ রান করে নিউজিল্যান্ড। স্বপ্নের ফাইনালের টিকেট পেতে ১৫৪ রান দরকার হয়ইংল্যান্ডের।

জবাবে ব্যাটিংয়ে নেমে শুরু থেকেই দারুণ বোঝাপড়ায় মাত্র ৩ উইকেট হারিয়ে ১৭ বল বাকি থাকতেই জয় বন্দরে পৌছে যায় ইংল্যান্ড।

১৫৪ রানে জয়ের লক্ষ্যে ব্যাট করতে নেমে শুরু থেকেই আক্রমনাত্মক খেলতে থাকে ইংল্যান্ড। অ্যালেক্স হ্যালস ও জেসন রয় মিলে ৮২ রানের অসাধারন এক ইনিংস খেলেন। ওপেনিংয়ে নেমে জেসন রয়ের ৭৮ রানের ইনিংসটাই মূলত ইংলিশদের জয়ের ভীত গড়ে দেয়। ৪৪ বলে ১১ চার ও ২ ছক্কায় বিধ্বংসী এই ইনিংসটি সাজান তিনি।

দলীয় ৮২ রানে ব্যক্তিগত ২০ রান করে স্যান্টনারের বলে আউট হন হ্যালস। দলীয় ১১০ রানে জেসন রয়ের আউটের পর গোল্ডেন ডাক মেরে প্যাভলিয়নের পথ ধরেন দলীয় অধিনায়ক মরগান। তাবে মরগানের পর ইংলিশদের আর কোনো উইকেট বিসর্জন দিতে হয়নি। জো রুট ২২ বলে ২৭ এবং জস বাটলার ১৭ বলে ৩২ রানে অপরাজিত থাকেন জস বাটলার।

বল হাতে নিউজিল্যান্ডের হয়ে ইশ সউদি ২টি এবং মিচেল স্যান্টনার ১টি উইকেট পান।

এরআগে শুরুতে ব্যাটিংয়ে নেমে দলীয় ১৪ রানের সময় ডেভিড উইলির বলে জোস বাটলারের হাতে ক্যাচ দিয়ে সাজঘরে ফেরেন কিউই ওপেনার মার্টিন গাপটিল। তবে ওয়ানডাউনে নামা কোলিন মুনরোকে নিয়ে ভালো একটি জুটি গড়েন কেন উইলিয়ামসন। তারা দুজনে মিলে ৭৪ রানের অসাধারণ এক জুটি গড়েন।

এরপর মঈন আলীর স্পিন ঘূর্নিতে দলীয় ৯১ রানে ব্যক্তিগত ৩২ রান করে সাজঘরে ফেরেন কেন উইলিয়ামসন। কিউইদের হয়ে সর্বোচ্চ ইনিংসটি আসে কোলিন মুনরোর ব্যাট থেকে। ৩২ বলে ৭ চার ও ১ ছক্কায় ৪৬ রান করেন তিনি। তাছাড়া কোরি অ্যান্ডারসন করেন ২৩ বলে ২৮ রান। শেষপর্যন্ত আর কেউ বড় কোনো ইনিংস খেলতে না পারায় ৮ উইকেটে হারিয়ে ১৫৩ রানে থামে কিউইদের দৌড়।

বল হাতে ইংল্যান্ডের হয়ে বেন স্টোকস ৩টি উইকেট পান। তাছাড়া ডেভিড উইলি, ক্রিস জর্ডান, মঈন আলী ও লিয়াম প্লাঙ্কেত একটি করে উইকেট পান।

ইংল্যান্ড অপরিবর্তিত দল নিয়ে মাঠে নেমেছে। অন্যদিকে নিউজিল্যান্ড দলে দুটি পরিবর্তন আছে। বাংলাদেশের বিপক্ষে বিশ্রামে থাকা মার্টিন গাপটিল ফিরেছেন। আর নাথান ম্যাককালামের পরিবর্তে খেলছেন অ্যাডাম মিলনে।

আজকের ম্যাচে যারা বিজয়ী হবে তারা সবার আগে ফাইনালে নামে লেখাবে। আর যারা হারবে তারা বিদায় নেবে বিশ্বকাপ থেকে।






মন্তব্য চালু নেই