মেইন ম্যেনু

কিভাবে বুঝবেন আপনি বেতন কম পাচ্ছেন?

যে কোনো প্রতিষ্ঠানই চায় সবচেয়ে কম অর্থ ব্যয় করে দক্ষ কর্মীদের দিয়ে কাজ করিয়ে নিতে। কিন্তু কর্মীরা চায় তার বিপরীত। আর এক্ষেত্রে আপনার অবস্থান হবে এ চাহিদা ও যোগানের ভারসাম্য বজায় রেখে। এখানে আপনার যোগ্যতা অনুযায়ী সঠিক বেতন নিতে হবে। আর এটি যদি আপনি না পান তাহলে তা আদায় করার জন্য ব্যবস্থা নিতে উদ্যোগী হতে পারেন। কিন্তু কিভাবে বুঝবেন আপনি যথাযথভাবে বেতন পাচ্ছেন কি না? এ লেখায় দেওয়া হলো কয়েকটি উপায়। এক প্রতিবেদনে বিষয়টি জানিয়েছে ফোর্বস।

১. যে কোনো প্রতিষ্ঠানই তাদের কর্মীদের বেতনের তালিকা গোপন করে রাখে। এতে কর্মীরা একে অপরের সঙ্গে তুলনা করতে পারে না। ফলে বেশ কিছু কর্মীকে কম বেতনেই কাজ করিয়ে নেওয়া যায়। এক্ষেত্রে আপনার কাজ হবে প্রতিষ্ঠানের ইনক্রিমেন্ট কিভাবে হচ্ছে তা লক্ষ্য করা।

যদি প্রতিষ্ঠানে আপনার মতো কাজ আরও কিছু মানুষ করে এবং তাদের উন্নতি হলেও আপনার উন্নতি উপেক্ষিত থেকে যায় তাহলে বুঝতে হবে আপনি আর্থিকভাবে বঞ্চিত হচ্ছেন।

২. আপনার প্রতিষ্ঠান যদি কাজের ভিত্তিতে আপনার বেতন না বাড়ায় তাহলে বুঝবেন এক্ষেত্রে বড় সমস্যা রয়েছে। ধরুন আপনি আগে যে কাজ করতেন পরবর্তীতে সে কাজের দায়িত্ব অনেকাংশে বেড়ে গেল। এছাড়া আপনি বাড়তি কোনো সার্টিফিকেট কোর্স কিংবা প্রশিক্ষণ নিয়ে কাজের দক্ষতা বাড়িয়ে তুললেন। এর পরেও যদি বেতন না বাড়ে তাহলে বঞ্চিত হওয়ার বিষয়টি সুস্পষ্ট হয়।

৩. দীর্ঘদিন দক্ষতার সঙ্গে কাজ করার পরেও যদি বেতন না বাড়ে তাহলে বুঝতে হবে আপনার প্রতিষ্ঠান থেকে আপনি যথেষ্ট পারিশ্রমিক পাচ্ছেন না। এক্ষেত্রে দুই বছর সময়টিকে আদর্শ ধরা যায়। যদি দুই বছর ধরে একটি কাজ দক্ষতার সঙ্গে করার পরেও আপনি কোনো ফলাফল না পান তাহলে এ বিষয়টি নিশ্চিত হওয়া যায়।

৪. শুধু আপনার প্রতিষ্ঠানেই যে বেতন বিষয়ে তুলনা করা সম্ভব তা নয়। আপনি একই ধরনের বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানে আপনার মতো যোগ্যতাসম্পন্ন ব্যক্তিরা যে ধরনের কাজ করে তাদের সঙ্গে তুলনা করুন। এতে আপনার বেতনের সঙ্গে তাদের বেতনের তুলনা করার একটি সুযোগ সৃষ্টি হবে। ফলে আপনি যদি তাদের তুলনায় কম বেতন পান তাহলে তা বুঝতে পারবেন।

৫. প্রত্যেক প্রতিষ্ঠানই আলাদা ধরনের।

এসব প্রতিষ্ঠানের কোনোটি বেশি বেতন দেয় কোনোটি আবার অন্যান্য সুযোগ সুবিধা দিয়ে সে ঘাটতি দূর করে। আপনার প্রতিষ্ঠান যদি কম বেতন দেয় তাহলে অন্যান্য সুযোগ-সুবিধার বিষয়টি বিবেচনা করুন। এমন হতে পারে যে আপনার কর্মঘণ্টা কম কিংবা অন্যান্য সুযোগ সুবিধা বেশি। এসব বিষয় বিবেচনা করে যদি দেখা যায় আপনার বেতন ও অন্যান্য সুযোগ সুবিধা কম তাহলে বুঝে নিতে হবে আপনি বঞ্চিত হচ্ছেন।






মন্তব্য চালু নেই