মেইন ম্যেনু

কিশোরগঞ্জে বলদকারের শিকার ৭ বছরের শিশু

খাদেমুল মোরসালিন শাকীর, কিশোরগঞ্জ (নীলফামারী) প্রতিনিধি॥ কিশোরগঞ্জ উপজেলার সদর ইউনিয়নের গদা উচাপাড়ায় সেচপাম্পের ঘরে বলদকারের শিকার হয়েছে ৭বছরের শিশু।

জানা গেছে,উপজেলার সদর ইউনিয়নে উচাপাড়া গ্রামে মুদি ব্যবসায়ী এজাবুল হকের ছেলে শরীফুল ইসলাম (১৬) একই এলাকার মৃত শাহাদত হোসেনের ছেলে সিয়াম হোসেনকে (৭) সন্ধ্যার দিকে ফুসলিয়ে সেচ পাম্পের ঘরে ডেকে নিয়ে যায় ধর্ষক শরীফুল ইসলাম। পরে সিয়ামের সাথে অনৈতিক কাজ করলে শিশু সিয়াম চিৎকার শুরু করে মাটিতে লুটিয়ে পরে। তার চিৎকারে এলাকাবাসী এগিয়ে আসলে ধর্ষক শরীফুল ইসলাম পালিয়ে যায়। সেখান থেকে শিশু সিয়ামকে আহত অবস্থায় কিশোরগঞ্জ স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে এসে প্রাথমিক চিকিৎসা নিয়ে বাড়ী ফিরে যান। শিশু সিয়াম হোসেনের চাচা সোহাগ হোসেন বলেন, আমার ভাই ঢাকায় থাকে। আমরা গরীব হওয়ায় আমার শিশু ভাতিজার বিচার কে করবে ? ক্ষোভ প্রকাশ করে বলেন কিসের বিচার ? কার কাছে বিচার চাই। বিষয়টি নিয়ে এলাকার মানুষের মাঝে আলোচনার ঝড় উঠেছে।

এ বিষয়ে ধর্ষক শরীফুল ইসলামের বাবা এজাবুলের কাছে জানতে চাইলে তিনি হেসে হেসে বলেন,আমাদের সমস্যা আমরা সমাধান করেছি। সদর ইউনিয়নের ওই ওয়ার্ড সদস্য বজলার রহমান জানান, আমাকেও কেউ এ বিষয়ে কিছু বলেনি। এলাকাবাসীর অভিযোগ ধর্ষক শরীফুল ইসলামের বিচার না হওয়ায় অনেক ধর্ষক ধর্ষনের সুযোগ নিবে। তবে শিশু সিয়াম ছেলে না হয়ে মেয়ে হলে তার জীবন কোন পথে যেত? আর এ বিষয়টি যেন কোন ভাবে থানা পুলিশের কাছে না যায় সেজন্য সদর ইউনিয়নের সাবেক ইউপি সদস্য তৈয়ব আলী সিয়ামের চাচাকে ভয়ভীতি দেখিয়ে বিষয়টি ধামাচাপা দেয়ার চেষ্ঠা করেন।

তিনি সাংবাদিকদের জানান, থানা পুলিশ বিষয়টি জানেন। এ ব্যাপারে কিশোরগঞ্জ থানার অফিসার ইনচার্জ মোস্তাফিজার রহমান বলেন,আমাকে এ বিষয়ে কেউ কোন কিছু জানায়নি আমাকে কেউ অভিযোগ করলে আমি ব্যবস্থা গ্রহন করবো।






মন্তব্য চালু নেই