মেইন ম্যেনু

কুমিল্লায় পারিবারিক শত্রুতার জেরে যুবককে পিটিয়ে হত্যা

মাসুদ আলম, কুমিল্লা : কুমিল্লা মহানগরীর বিষ্ণুপুরে সুমন (২০) নামে এক যুবককে পিটিয়ে হত্যার অভিযোগ। গত ৭ জুলাই জেলার সদর উপজেলার বিষ্ণুপুর পশ্চিম পাড়ায় নিহত সুমনের মরাদেহ এক বসত ঘর থেকে উদ্ধার করে পুলিশ।

নিহত সুমন (২০) একই জেলার তিতাস উপজেলার রঘুনাথপুর গ্রামের বশির মিয়ার ছেলে। কিন্তু দীর্ঘদিন যাবৎ বশির মিয়া তার সহপরিবার নিয়ে কুমিল্লা বিষ্ণুপুর ভাড়া বাসায় থাকতেন।

নিহতের বাবা বশির মিয়া জানায়, নিহত সুমন দীর্ঘদিন যাবৎ বিষ্ণুপুরে পরিবারের সাথে বসবাস করে আসছেন। পেশায় একজন অটোচালক, বশির মিয়ার তিন ছেলের মধ্যে সুমন বড় ছেলে। মাত্র ২ মাস আগেই তার ছেলের বিয়ে করেন।

হত্যার ঘটনার বিষয়ে বশির বলেন- গত বৃহস্পতিবার ঈদ থাকায় পরিবারের সবাই নিজ গ্রামে চলে যায়। সুমন ও তার বউ বাসায় ছিল। ওইদিন দুপুরে আতশ বাজি নিয়ে প্রতিবেশী পারভীনের ছেলে সাইফের সাথে ঝগড়া হয়। এক পর্যায়ে সুমনকে প্রতিবেশি পারভীন ও তার ছেলে মিলে বেদড় মারধোর করে। পরে খবর পেয়ে বিকালে এসে ছেলেকে কুমিল্লা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে যায়। তারপর সেখানকার কর্তব্যরত ডাক্তার সুমনকে মৃত ঘোষণা করেন।

তারপর এলাকার কিছু লোকের প্ররোচনায় নিহতের বাবা বিষয়টি থানায় অবহিত না করে লাশ দাফনের প্রস্তুতি নেয়। হত্যার বিষয়টি পুলিশ জানতে পারলে ৭ জুলাই বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় বিষ্ণুপুর নিজ বাসভবন থেকে তার লাশ উদ্ধার করে কুমিল্লা মেডিকেল কলেজে হাসপাতালে ময়নাতদন্তের জন্য প্রেরণ করেন।

নিহত সুমনের স্ত্রী শিল্পী জানায়, প্রতিবেশী পারভীন ও তার স্বামী আলী এবং ছেলে সাইফ’এর সাথে আতশবাজী নিয়ে ঝগড়া হওয়ায় সুমনকে ঘরে এসে তার সামনেই রড ও লাঠি দিয়ে বেধরক মারধর করে। ওই সময় তাকেও মারধর করে। সুমনের স্ত্রী বাধা দিলে হত্যাকারী পারভীন তাকে বলেন সুমন মারা গেলে ২ লক্ষ টাকা ক্ষতিপূরন বাবদ প্রদান করবেন।

এব্যাপারে কোতয়ালী মডেল থানার এস আই রফিকুল ইসলাম জানায়, সুরত হাল রিপোর্টে গলায় ফাসের দাগ, মাথায় জখম ও ডান হাতের আঙ্গুলে রক্তাক্ত জখম উল্লেখ করা হয়েছে। তবে মৃত্যু কিভাবে হয়েছে তা ময়নাতদন্তের রিপোর্ট না আসা পর্যন্ত কিছু বলা যাচ্ছে না। একটি বিশ্বস্থ সূত্রে জানা যায়, পারভীন ও তার স্বামী আলীর নামে এর আগেও একটি হত্যা মামলা হয়েছে। যা এখনও আদালতে প্রক্রিয়াধীন। নিহত সুমনের পরিবারের দাবী পারভীন, তার স্বামী আলী ও সাইফ সঙ্গীয় লোকজন নিয়ে সুমনকে হত্যা করেছে।






মন্তব্য চালু নেই