মেইন ম্যেনু

কুমিল্লায় মাছের বাজার চড়া হলেও সবজির বাজারে স্বস্তি

মাসুদ আলম, কুমিল্লা থেকে : সিয়াম সাধনার মাস রমজান মাসের শুরু থেকেই কুমিল্লার বাজারে বেড়েছে মাছের দাম। প্রতি কেজি মাছে দাম ২৫ থেকে ৩০টা বাড়ার সাথে সাথে বেড়েছে ইফতার তৈরির পণ্যের দাম। বিশেষ করে দাম বেড়েছে বেগুন, পেঁয়াজ, পেঁপের। মাছের বাজর চড়া হলেও কুমিল্লা সবজি বাজার শিথিল। সবজি বাজারের পাইকারি ব্যবসায়িকরা জানান ঝড়-বৃষ্টিতে মাঠে কাঁচা সবজির ক্ষয়-ক্ষতি না হওয়াতে বাজারে আমদানি বেড়েছে। ফলে রমজানেও কুমিল্লার সবজির দাম তুলনা মূলক ভাবে শিথিল।

সবজি বাজারের কয়েকজন পাইকারি ব্যবসায়ীদের দাবি আগের তুলনায় রমজানে সবজির দর কমেছে বেগুন ৪০ থেকে ৪৫ টাকা, কাঁচামরিচ ২০টাকা, করলা ৩৫ থেকে ৪০ টাকা, চিচিঙ্গা ১৫ থেকে ২০ টাকা, কাকরোল ১৫ টাকা, পেঁপে ২৫ টাকা, আলু (সাদা) ২০ টাকা, শসা ২৫ থেকে ৩০ টাকা, লাউ ২০ থেকে ২৫ টাকা, চাল কমড়া ১৫ থেকে ২০ টাকা ঝিঙ্গা ১৫ থেকে ২০ টাকা, লত সিম ২০ টাকায় বিক্রি হচ্ছে বলে জানান পাইকারি ব্যবসায়ী রঞ্জিত সাহা ও রাজিব।

এদিকে রমাজানের প্রথম থেকেই মাছের বাজারে প্রতি কেজি ২৫ থেকে ৩০ টাকা চড়া হলেও ক্রেতাদের ক্রয় ক্ষমতার মধ্যে রয়েছে। কুমিল্লা বর্তমান বাজারে প্রতিকেজি রুই মাছ ২৫০ থেকে ২৮০ টাকা, কাতল ৩০০ থেকে ৪০০ টাকা, তেলাপিয়া ১৪০ থেকে ১৩০ টাকা, কই ১৮০ থেকে ২০০ টাকা, সিলবার কাপ ১৪০ থেকে ১৫০ টাকা এবং পাঙ্গাস মাছ ৯০ থেকে ১২০ টাকায় কুমিল্লা মাছ বাজারে বিক্রয় হচ্ছে বলে জানান পাইকারি মাছ ব্যবসায়ী আবুল কাশেম।

এছাড়াও মসলার বাজারে পেয়াঁজ ও আদার দাম সীমিত থাকলেও বেড়েছে অন্যান্য জাতের মসলার দাম। কুমিল্লার চকবাজারের কয়েকটি পাইকারি দোকান ঘুরে দেখা যায় প্রতিকেজি বিদেশি রসুনের দাম ১০৫ টাকা, দেশিটা ৭০টাকা, হলুদ ১৫০ থেকে ২০০ টাকা, শুকনো মরিচ ১৪০ টাকা। পেয়াঁজ ও আদার দাম সীমিত হলেও বর্তমান রমজানের বাজারে বিক্রয় হচ্ছে প্রতিকেজি পেয়াঁজ ২০ টাকা এবং আদা ৩৮ টাকায়।






মন্তব্য চালু নেই