মেইন ম্যেনু

কুমিল্লা বিভাগ মানবে না লক্ষ্মীপুরবাসী

নোয়াখালী বিভাগ বাস্তবায়নের দাবিতে দলমত নির্বিশেষে সংগ্রাম চালিয়ে যাওয়া ঘোষণা দিয়েছে লক্ষ্মীপুরের সুশীল সমাজ।

তাদের দাবি, স্বাধীনতার পরেও দৃশ্যমান উন্নয়ন হয়নি এ জেলায়। এছাড়া সুযোগ-সুবিধার দিক দিয়েও অনেক পিছিয়ে বৃহত্তম নোয়াখালী জেলা। তাই কুমিল্লার পরিবর্তে তারা নোয়াখালী বিভাগ চান।

অন্যদিকে, নোয়াখালীর বিভিন্ন জায়গায় এ নিয়ে মানববন্ধন পালিত হয়েছে।

লক্ষ্মীপুর জেলা হিন্দু-বৌদ্ধ-খ্রিস্টান ঐক্য পরিষদের নেতা শংকর কুমার মজুমদার বলেন, ‘নোয়াখালী, ফেনী, লক্ষ্মীপুর, চাঁদপুর, কুমিল্লা ও ব্রাহ্মণবাড়িয়া এই ছয় জেলার মানুষের সংস্কৃতি, কৃষি ও যাতায়াত-সুবিধা বিবেচনা করে নোয়াখালী বিভাগ প্রতিষ্ঠা করলে এ অঞ্চলের প্রায় পৌনে দুই কোটি মানুষের চাকরি, ব্যবসা-বাণিজ্য, প্রশাসনিক কার্যক্রম অত্যন্ত দ্রুত সম্পন্ন হবে।’

জেলা বিএনপির যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক নিজাম উদ্দিন ভূঁইয়া বলেন, ‘মাত্র চারটি জেলা নিয়ে সিলেটকে যেখানে বিভাগ করা হয়েছে, সেখানে ছয়টি জেলা নিয়ে নোয়াখালী বিভাগ গঠন অত্যন্ত যুক্তিসঙ্গত ও সময়োপযোগী দাবি।’

রায়পুর উপজেলা চেয়ারম্যান আলতাফ হোসেন বলেন, ‘আমরা নোয়াখালী বিভাগ চাই, কুমিল্লা হলে তার সুফল আমরা পাব না। এ জন্য আন্দোলন-সংগ্রাম যা প্রয়োজন তা করতে রাজি।’

লক্ষ্মীপুর পৌরসভার মেয়র আবু তাহের বলেন, ‘এখানকার মানুষের ভাষা ও সংস্কৃতি প্রায় একই রকম হওয়ায় ফেনী, নোয়াখালী ও লক্ষ্মীপুর জেলা নিয়ে নোয়াখালী বিভাগ গঠন যুক্তিসঙ্গত দাবি। নোয়াখালী বিভাগ হলে এ অঞ্চলের মানুষের সব ধরনের সুযোগ-সুবিধা বৃদ্ধি পাবে।’

এ ব্যাপারে জেলা প্রশাসক মো. জিল্লুর রহমান চৌধুরী বলেন, ‘সুশীল সমাজ থেকে যে দাবি উঠেছে তা ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষকে জানানো হবে।’

এদিকে, বৃহত্তর নোয়াখালী ও বৃহত্তর কুমিল্লাসহ ৬টি জেলা নিয়ে নোয়াখালী বিভাগ বাস্তবায়নের দাবিতে নোয়াখালীর বেগমগঞ্জ উপজেলার বিভিন্ন স্থানে একযোগে মানববন্ধন অনুষ্ঠিত হয়েছে।

সোমবার সকাল ১১টার দিকে নোয়াখালী-৩ আসনের সংসদ সদস্য মামুনুর রশিদ কিরণের নেতৃত্বে উপজেলার চৌরাস্তা থেকে চৌমুহনী বাজার পর্যন্ত চার কি.মি. দীর্ঘ এ মানববন্ধন কর্মসূচি পালন করা হয়।
মানববন্ধনে বিভিন্ন স্কুল, কলেজ, মাদরাসার শিক্ষক-শিক্ষার্থী, সামাজিক-সাংস্কৃতিক সংগঠন, বিভিন্ন রাজনৈতিক দলের নেতাকর্মীসহ সাধারণ মানুষ অংশ নেয়।

মানববন্ধনে আঞ্চলিক অবস্থান ও সম্ভাবনা বিবেচনা করে নোয়াখালী বিভাগ বাস্তবায়নের জোর দাবি জানানো হয়।






মন্তব্য চালু নেই