মেইন ম্যেনু

কুয়াকাটায় নিখোঁজ মাগুরার প্লাবনের লাশ উদ্ধার

মাগুরা প্রতিনিধি : কুয়াকাটা সমুদ্র সৈকতে নিখোঁজ মাগুরার বেলনগর গ্রামের প্লাবন আহমেদের (১৯) লাশ শনিবার (২৩ জুলাই) সকালে সাগরে ভাসমান অবস্থায় পাওয়া গেছে।

শুক্রবার দুপুর থেকে প্লাবন নিখোঁজ ছিল। তখন থেকে সমুদ্রে অনেক খোঁজাখুজি করা হচ্ছিল কিন্তু প্লাবনকে পাওয়া যায়নি।

প্লাবনের চাচাতো ভাই সালেহুজ্জামান টুটুল জানান- শনিবার সকালে টুরিস্ট পুলিশ প্লাবনের মরদেহ সাগর সৈকত থেকে উদ্ধার করে। তার পরিবারের সদস্যরা ইতিমধ্যে কুয়াকাটায় পৌঁছেছে। প্রয়োজনীয় আনুষ্ঠানিকতা শেষে তার লাশ মাগুরায় আনার ব্যবস্থা করা হচ্ছে।

জানা গেছে- প্লাবন তাঁর ঢাকার বন্ধু নেওয়াজকে নিয়ে বৃহস্পতিবার ঢাকা থেকে কুয়াকাটায় বেড়াতে যান। কুয়াকাটায় সান নামক একটি হোটেলে তাঁরা উঠেছিলেন। শুক্রবার বেলা ১২টার দিকে দুই বন্ধু সমুদ্রসৈকতে গোসল করতে নামেন। আধা ঘণ্টা পর সাগরের উত্তাল ঢেউয়ে প্লাবন আহমেদ তার ভেসে থাকার টিউব থেকে বিচ্ছিন্ন হয়ে নিখোঁজ হন। তাঁর সঙ্গে থাকা বন্ধু নেওয়াজের চিৎকারে অন্য পর্যটকসহ এলাকাবাসী এগিয়ে আসেন। স্থানীয় জেলেরা অনেক খোঁজাখুঁজি করেও তাঁর খোঁজ পায়নি। পরে আজ সকালে সৈকতে তার লাশ ভেসে আসলে টুরিস্ট পুলিশ তা উদ্ধার করে।

প্লাবন মাগুরা সদর উপজেলার বেলনগর গ্রামের মোশারফ হোসেনের ছেলে। তিনি এ বছর মাগুরা হোসেন শহীদ সোহরাওয়ার্দী কলেজ থেকে এইচএসসি পরীক্ষা দিয়েছেন। তার মৃত্যুতে এলাকায় শোকের ছায়া নেমে এসেছে।

বন্ধু নেওয়াজকে নিয়ে পটুয়াখালীর কুয়াকাটা সমুদ্রসৈকতে গিয়েছিলেন প্লাবন। সাঁতার জানতেন না। একটি ভাড়া করা টিউব নিয়ে গোসল করতে নামার আগে নিজের মুঠোফোনে কয়েকটি সেলফি তোলেন প্লাবন। ওই সেলফিগুলোই ছিল হতভাগ্য প্লাবনের শেষ সেলফি ।






মন্তব্য চালু নেই