মেইন ম্যেনু

কেনাকাটা করতে গিয়ে ধর্ষণের শিকার তরুণী

কিশোরগঞ্জ জেলার কটিয়াদী উপজেলা সদরের বাসস্ট্যান্ড সংলগ্ন বাজারে কাপড় কিনতে এসে ধর্ষণের শিকার হয়েছেন এক তরুণী।

বৃহস্পতিবার রাত ৭টার দিকে স্থানীয় ভোজন রেস্তোঁরার পাশে একটি বাসায় ওই তরুণীকে তুলে নিয়ে গিয়ে ধর্ষণ করেছে এক যুবক।

এ ঘটনায় বাসার মালিকসহ তিনজনকে আটক করলেও মালিকের বন্ধু বীর নয়াকান্দি গ্রামের হিরা মিয়ার ছেলে ধর্ষক সুমনকে এখনও গ্রেফতার করতে পারেনি পুলিশ।

পুলিশ ও ধর্ষিতার সূত্রে জানা যায়, বৃহস্পতিবার সন্ধ্যার পর মেয়েটি তার ভগ্নিপতির বাসা থেকে স্থানীয় বাজারে কাপড় কিনতে রওনা হয়। বাজরের পাশে অবস্থিত ভোজন রেস্তেরার পেছনের পথ দিয়ে যাওয়ার সময় তাকে মুখচেপে ধরে পাশের একটি বাসায় নিয়ে জোরপূর্বক ধর্ষণ করে ওই বাসার মালিকের বন্ধু সুমন।

পরে মেয়েটির চিৎকারে আশেপাশের লোকজন এসে তাকে উদ্ধার করে থানায় নিয়ে যায়।

এ ঘটনায় জড়িত সন্দেহে পুলিশ প্রথমে ওই বাসার মালিক সজল সরকার, দেলোয়ার হোসেন রুবেল ও সোহাগ নামে তিনজনকে আটক করে। পরে সোহাগের সম্পৃক্ততা না থাকায় তাকে ছেড়ে দেয়া হয়।

এ ব্যাপারে বৃহস্পতিবার রাত ১২টার দিকে কটিয়াদী মডেল থানায় ধর্ষিতা নিজে বাদি হয়ে ধর্ষক সুমন, বাসার মালিক সজল সরকার ও দেলোয়ার হোসেন রুবেল নামে তিনজনকে আসামি করে একটি ধর্ষণ মামলা দায়ের করেছেন।

ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে কিশোরগঞ্জ মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. আবদুস সালাম জানান, এ ঘটনায় একটি মামলা হয়েছে। সজল সরকার ও দেলোয়ার হোসেনকে গ্রেফতার করা হয়েছে।

এ ছাড়া ধর্ষক সুমনকে গ্রেফতার করতে অভিযান চলছে বলে জানান ওসি।






মন্তব্য চালু নেই