মেইন ম্যেনু

কেরানীগঞ্জে কারাবন্দি স্বামীর সঙ্গে দীর্ঘদিন পর হঠাৎ কথা হলো স্ত্রীর!

‘ওই সুমন, ওই সুমন।’ ‘কোথায় কর্ণফুলীতে?’ ‘হ্যাঁ কর্ণফুলীর ৬ তলায়’। ঘটনাটি সোমবার দুপুরে কেরানীগঞ্জের ঢাকা কেন্দ্রীয় কারাগারের। কারাগারের পশ্চিমের দেয়ালের পাশে বন্দিদের অর্ধশতাধিক স্বজন এভাবেই চিৎকার করছিলেন। উদ্দেশ্য কারাগারে বন্দি স্বজনকে খোঁজা।খবর জাগো নিউজের।

গত ২৯ জুলাই পুরান ঢাকার নাজিমুদ্দিন রোড থেকে বন্দিদের কেরানীগঞ্জের নবনির্মিত ঢাকা কেন্দ্রীয় কারাগারে নিয়ে আসা হয়েছে। কারাগার স্থানান্তরের তৃতীয় দিনের মাথায় বন্দিদের সঙ্গে পরিবারের সদস্যদের সাক্ষাতের সুযোগ দেয়া হয়।

একদিন প্রায় সাড়ে ৬ হাজার বন্দি স্থানান্তর করলেও এখনো অভ্যন্তরীণ অনেক কাজ গুছিয়ে উঠতে পারেনি কারা কর্তৃপক্ষ। পুরনো কারাগারের কোন সেলের আসামিকে নতুন কারাগারে কোন সেলে রাখা হয়েছে এ বিষয়ে পরিবারের সদস্যদের স্পষ্ট কিছু বলেনি কারা কর্তৃপক্ষ।

নিজের স্বামীকে দেখতে এসে সোমবার স্ত্রী শাহানা (ছদ্মনাম) প্রায় ৩ ঘণ্টা রোদে বসেছিলেন। অথচ জানেন না কোন সেলে আছে তার স্বামী। হঠাৎ স্বামীর চিৎকার শুনে কারাগারের পশ্চিম পাশের দেয়ালের কাছে যান তিনি। স্বামীর অবস্থান সম্পর্কে জানতে চান। জবাবে তার স্বামী বলেন, ‘৬ তলায়, ৬ তলায়, কর্ণফুলীর-৬ তলায় আছি।’

পরে স্বামীর অবস্থান জেনে তার নাম ও অবস্থান দিয়ে টিকিট কাটেন শাহানা। স্বামীর সঙ্গে দেখাও হয় তার।

সোমবার কারাগারে গিয়ে এ ধরনের আরো কয়েকটি চিত্র চোখে পড়ে। কারাগারের বাইরে থেকে কর্ণফুলী সেলের ৩ থেকে ৬ তলা পর্যন্ত সেলগুলোর আসামিদের কথা শোনা যায়। লোহার শিকের মাঝে তাদের ঝাপসা চেহারাটাও দেখা যায় অনেক সময়।

ভিডিওটি দেখতে এখানে ক্লিক করুণ…






মন্তব্য চালু নেই