মেইন ম্যেনু

কোথায় বেশি বাজ পড়ে, জানালের বিজ্ঞানীরা!

বর্তমান সময়ে বজ্রপাতের ঘটনা খুব বেশি পরিমাণে হয়ে চলছে। বজ্রপাতের কারণে গতকাল ১২ মে প্রায় ৪৩ জন এবং আজ ১৩ মে এখন পর্যন্ত পাওয়া খবরে প্রায় ১১ জনের মৃত্যু হয়েছে। তবে কি করণে এত বেশি পরিমাণে বজ্রপাত হচ্ছে তা এখনো জানা যায়নি। তবে কোন জায়গায় এই বজ্রপাত বেশি পরিমানে হয়ে থাকে সেই বিষয়ে বিজ্ঞানীরা কিছু তথ্য প্রমাণ পেয়েছে। আর সেই তথ্যই পাঠকদের জন্য তুলে ধারা হলো।

একই জায়গায় বাজ দু’বার পড়ে না, এরকম একটা বিশ্বাস চালু রয়েছে। বিশেষজ্ঞরা বলছেন, এমন ধারনা সম্পূর্ণ ভূল।

১৯৯৭ বজ্রপাত নিয়ে এক সমীক্ষা দেখা গেছে, কোনো কারণ ছাড়াই এক জায়গায় তিনবার পরপর বাজ পড়েছে। তবে কী কারণে একই জায়গায় বারবার বাজ পড়ে, সে সম্পর্কে গবেষণায় এক নতুন তথ্য আবিস্কার করেছে নাসা।

১৯৯৮ থেকে ২০১৩ নাসার ট্রপিক্যাল রেইনফল মেজারিং মিশন ও অরবভিউ ওয়ান/মাইক্রোল্যাব স্যাটেলাইট বিভিন্ন জায়াগার বজ্রপাতের তথ্য সংগ্রহ করে। সেখান থেকে উঠে এসেছে এক চাঞ্চল্যকর তথ্য। দেখা গেছে, বিষুবরেখার কাছাকাছি অঞ্চলে সবচেয়ে বেশি বজ্রপাত হয়। সমুদ্র থেকে স্থলভাগেই বজ্রপাত হওয়ার সম্ভাবনা বেশি।

এর কারণ বোঝাতে গিয়ে নাসার আর্থ অবজার্ভেটরি ওয়েবসাইটে আরো জানানো হয়েছে, সাধারণত মাটি পানির থেকে বেশি সূর্যরশ্মি শোষণ করে। এরফলে পানির নিচের তুলনায় কয়েকশো গুণ বেশি উত্তপ্ত হয় ভূত্বক। বিশাল এলাকা জুড়ে ঝড়ের সৃষ্টি হলে ফাঁকা জায়গা বা উঁচু পার্বত্য জায়গায় বজ্রপাত হওয়ার সম্ভাবনা বেশি থাকে।

নাসার বিজ্ঞানীরা জানিয়েছেন, পৃথিবীতে সবথেকে বেশি বজ্রপাত হয় ভেনিজুয়েলার লেক মারাকেবিওতে। বছরে তিনশো দিন সেখানে বাজ পড়ে। প্রতি এক কিলোমিটারে বছরে ২৫০ বার বজ্রপাত হয়ে থাকে।

-জিনিউজ






মন্তব্য চালু নেই