মেইন ম্যেনু

কোদালিছড়া পুঃন খননের নেপথ্যে

মাহমুদ এইচ খান, মৌলভীবাজার: মৌলভীবাজার শহরের মানুষের প্রধান ভোগান্তির কারণ ছিলো কোদালী ছড়া। এই শহরের সর্বসাধারণের প্রানের দাবী ছিলো খালটিকে পু:খননের। অবশেষে তাই হতে চলেছে। শনিবার (৭ জানুয়ারি) দুপুরে এ খনন কাজের উদ্বোধন করা হয়। কিন্তু তার পূর্বে এই খালের খনন ও দখলমুক্ত করার লক্ষে বিভিন্ন সময় জনপ্রতিনিধির প্রতিশ্রুতি সহ সামাজিক সংঘঠনের বেশ কয়েকটি দাবী জানিয়ে আসছিলো।

মৌলভীবাজার পৌরসভার অধিনে খালটির গুরুত্বপূর্ণভাগ প্রবাহিত হওয়ায় গত পৌর নির্বাচনে এই খালের সমস্যাটি জনসম্মুখে নিয়ে আসেন বাংলাদেশ ওয়ার্কার্স পার্টি মনোনিত মেয়র পদপ্রার্থী সৌমিত্র দেব। তিনি তার নির্বাচনী ইশতিহারেও প্রধান্য দিয়ে ছিলেন এই কোদালি ছড়াকে। পরবর্তী সময়ে এর সমাধানে স্থানীয় বিশেষ ব্যক্তিদের নিয়ে সেমিনারও করেছিলেন সৌমিত্র দেব। যার থেকে ব্যাপক ভাবে আলাচনায় আসে এই খালের পু:ন খননের বিষয়টি।

তারই মধ্যে সাংবাদিক হাসনাত কামাল ও সংগঠক ডোরা প্রেন্টিসের যৌথ উদ্যোগে স্বপ্নের শহর’ নামের ফেসবুক গ্রুপ নানা সমস্যা ও সম্ভাবনা তুলে ধরার মাধ্যমে কোদালি ছড়াকে জন প্রতিনিধি ও জনসাধারণের সামনে টেনে আনে। যার মাধ্যমে একটি কাল্পনিক নকশাও তারা প্রকাশ করেছিলো এই ছড়াকে পর্যটন কেন্দ্রীক করার লক্ষে।

এর কিছু দিনের মধ্যে শহর জুড়ে সভা সমাবেশের মাধ্যমে গন সংযোগ চালায় দুর্নীতিমুক্তকরণ বাংলাদেশ যুব ফোরাম নামের একটি সংগঠন। তারা শহরের বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ন স্থানে সমাবেশের মাধ্যমে বিগত সময়ের এই কোদালিছড়ার পু:নখননের নামে অর্থ আত্মসাত ও দুর্ণীতির বিষয় তুলে আনে। যা এক নতুন আলোচনার সৃষ্টি করে। এই আন্দোলনের সমন্বেয়ে গুরুত্বপূর্ন ভুমিকা পালন করেন মানবধিকার কর্মী চিনু রঞ্জন তালুকদার ও সংবাদকর্মী ও সংগঠক মাহমুদ এইচ খান। মধ্যখানে পরিবেশের ভারসাম্য রক্ষায় খালটি পুন:খনন প্রয়োজন এমন দাবী নিয়ে সুর তুলে আ স ম সালেহ সুহেলের নেতৃত্বে বাংলাদেশ পরিবেশ আন্দোলন (বাপা)।

এছাড়া জেলায় কর্তবরত সংবাদকর্মীরা বিভিন্ন সময় বিশ্লেষনধর্মী প্রতিবেদন পকাশ করতে থাকেন। যা এই কোদালিছড়া পু;ন খনন আন্দোলন আরো তরান্মিত হয়। সংবাদের অনুসন্ধঅনে এবং বিভিন্ন সভা সমাবেশে এই খালের খননের নাম করে কোটি টাকা আত্মসাতের অভিযোগও আনা হয় তৎকালীন পৌর মেয়র ফয়জুল করিম ময়ূনের বিরুদ্ধে।

এসকল আলোচনা সমালোচনার ঝড়ের ফলে অবশেষে বর্তমান মৌলভীবাজার পৌর মেয়র ফজলুর রহমান ও সদর উপজেলা চেয়ারম্যান মিজানুর রহমানের উন্নয়ন পরিকল্পনার ধারাবাহিকতায় খালটি পুন;খননের কাজের উদ্বোধন করা হয়েছে। বাংলাদেশ কৃষি উন্নয়ন কর্পোরেশন (বিএডিস) সিলেট বিভাগ ক্ষুদ্রসেচ উন্নয়ন প্রকল্প এর অর্থায়নে প্রায় ৫৩ লক্ষ টাকা ব্যয়ে সাড়ে ৫ কি.মি খাল পুন:খনন করা হবে। উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে জেলাপ্রশাসক, পুলিশ সুপার,মেয়র থেকে শুরু করে সবাই ধন্যবাদ জ্ঞাপন করেন এই খালের পু:ন খননের জন্য যারা কাজ করেছিলেণ।

এই উন্নয়ন প্রকল্পের বাইরে রয়েছে পৌর শহরের মধ্যে দিয়ে কোদালি ছড়ার অংশটি। যা নিয়ে জনমনে নতুন কিছু প্রশ্নের সৃষ্টি হয়েছে। তবে মেয়র আশ্বস্ত করেছেন আগামী বছরের মধ্যে এই খালের পুরো অংশ পুন;খনন ও দখলমুক্ত করা হবে। সাধারণ মানুষের দাবী এই খালের পু:ন খনন যাতে উদ্বোধনের মধ্যে সীমাবদ্ধ না থেকে জনগনের জন্য সুফল বয়ে আনতে পারে।






মন্তব্য চালু নেই