মেইন ম্যেনু

কোন ধরণের বিয়েতে মানুষ সবচাইতে বেশি সুখী হন ?

অনেক আগে থেকেই প্রেমের বিয়ে এবং পারিবারিক বিয়ে এই দুটি বিষয় নিয়ে মতবিরোধ চলে আসছে। অনেকের মতে প্রেমের বিয়েতে সুখে থাকা যায়, কারণ এখানে স্বামী-স্ত্রীর মধ্যে ভালোবাসা রয়েছে। আবার, অনেকের মতে পারিবারিক বিয়েতেই শান্তি বেশি, কারণ পরিবার সাথে থাকে। কোন বিয়েতে মানুষ সুখে থাকেন বেশি তা নিয়ে অনেক তর্ক বিতর্কই হয়েছে। কিন্তু আসলেই মানুষ কোন ধরণের বিয়েতে বেশি সুখে থাকেন তা জানেন কি? চলুন তবে জেনে নেয়া যাক গবেষণা কি বলে।

ম্যারিটাল স্যাটিসফেকশনের উপর ন্যাশনাল ব্যুরো অফ ইকোনোমিক রিসার্চের গবেষণায় পাওয়া যায়, যে দম্পতির মধ্যে বন্ধুত্বের সম্পর্ক যতো বেশি মজবুত সে দম্পতি ততোবেশি সুখী। যদি এই বন্ধুত্ব প্রেমের বিয়ের মাধ্যমে হয়ে থাকে তাহলে বেশি সুখে থাকা সম্ভব, আবার যদি পারিবারিক বিয়ের পর এই বন্ধুত্ব গড়ে নেয়া সম্ভব হয় তাহলে সুখে থাকেন দম্পতিরা। অর্থাৎ স্বামী-স্ত্রীর মধ্যকার এই বন্ধুত্বের সম্পর্কই সুখে থাকার চাবিকাঠি তা সে প্রেমের বিয়ে হোক বা পারিবারিক বিয়ে হোক না কেন।

যে কারণে স্বামী-স্ত্রীর বন্ধুত্ব সুখে থাকার চাবিকাঠি
গবেষণায় দেখা যায় যেসকল দম্পতির মধ্যে বন্ধুত্বের সম্পর্ক রয়েছে তাদের জীবন অনেক বেশি সহজ এবং আনন্দময়। কিন্তু ঠিক কি কারণে? কারণ বন্ধুত্বের সম্পর্কের সাথে একটি সহজ স্বাভাবিক সম্পর্ক ও জীবনের সন্তুষ্টির অনেক গভীর সম্পর্ক রয়েছে। গবেষণায় দেখা যায় যারা নিজের সঙ্গীকে বন্ধুত্বের সম্পর্কে জড়িয়ে নিয়েছেন তারা অন্যান্য দম্পতির তুলনায় দ্বিগুণ সুখী থাকেন তাদের দাম্পত্য জীবনে। কারণ তারা একেঅপরের সবকিছু খুব ভালো করে জেনে বুঝে নেন ঠিক একজন বন্ধুর মতো এবং ঠিক বন্ধুর মতোই জীবনের সবক্ষেত্রে সঠিক সাপোর্ট পান।

এছাড়া গবেষণায় আরও দেখা যায়, মধ্য বয়সে যখন একজন মানুষের সবচাইতে বেশি সাপোর্টের প্রয়োজন হয় তখন বন্ধুরূপী জীবনসঙ্গীই সবচাইতে বেশি সাপোর্ট দিতে পারেন। এবং একেঅপরের সহযোগিতাতেই নিজেদের বড় বড় সমস্যার মোকাবেলা করতে পারেন।

একটি আজীবনের সম্পর্কে সঙ্গীর কাছ থেকে সাপোর্ট পাওয়াটাই জীবনে সন্তুষ্টি আনার জন্য যথেষ্ট। আর সন্তুষ্টি থেকেই আসে সুখ। সুতরাং এটিই প্রমাণিত হয় যে, বিয়ে যে ধরণেরই হোক না কেন, যে স্থানেই হোক না কেন, যদি সঙ্গীর সাথে বন্ধুত্বের সম্পর্ক গড়ে নেয়া যায় তাহলে দাম্পত্য জীবন সবচাইতে সুখে কাটে।

সূত্রঃ বিজনেস ইনসাইডার






মন্তব্য চালু নেই