মেইন ম্যেনু

ক্যানসারের চিকিৎসায় নতুন দিগন্ত

ক্যানসার রোগের চিকিৎসায় নতুন সাফল্য অর্জন করেছেন বলে দাবি করেছেন কানাডার মন্ট্রিল বিশ্ববিদ্যালয় হাসপাতালের চিকিৎসা বিজ্ঞানীরা। তারা ‘বায়োজেল’ নামে এমন একধরনের উন্নত ইনজেকশন তৈরি করেছেন যা ক্যানসার প্রতিরোধী উপাদানের সাথে মিশে সরাসরি টিউমারে আঘাত হানবে এবং ধ্বংস করবে।

প্রযুক্তিটি ইতিমধ্যে সফলভাবে গবেষণাগারে পরীক্ষা করা হয়েছে। যদি এটি ক্যানসার রোগীদের ক্ষেত্রে কাজ করে, তাহলে বিভিন্ন ধরনের ক্যানসার চিকিৎসায় বিপ্লব সৃষ্টি হবে। নতুন ‘বায়োজেল’ কক্ষের তাপমাত্রায় তরল এবং মানবশরীরের ৩৭ ডিগ্রি সেলসিয়াস তাপমাত্রায় জেলে পরিণত হবে।

গবেষণার সহ-লেখক রেজিয়ান লাপয়েন্তি বলেন, ‘বায়োজেল’ এর প্রধান ক্ষমতা হচ্ছে এটি ক্যানসার প্রতিরোধী কোষের সাথে কাজ করে। এটি কোষকে পরিবেষ্টিত করে এবং সিরিঞ্জের মাধ্যমে সরাসরি টিউমারে প্রবেশ করে বা পাশে অবস্থান করে।

লেপয়েন্তি আরও বলেন, এই ধরনের কোষ ইনজেকশনের মাধ্যমে প্রবেশ না করিয়ে, ক্যানসার প্রতিরোধী ওষুধ রক্তের সাথে পুরো শরীরে প্রবেশ করিয়ে আমরা স্থানীয়ভাবে ক্যানসারের চিকিৎসা করাতে পারি। আমরা আশা করি, আমাদের নতুন পদ্ধতি বর্তমান ইমনোথেরাপিকে উন্নত করবে।

ক্যানসার প্রতিরোধী ইমনো কোষগুলোকে টি-কোষ বলা হয়ে থাকে। যা প্রাকৃতিকভাবে শরীরে তৈরি হয় এবং ক্যানসারের কোষগুলোকে ধ্বংস করার ক্ষমতা রয়েছে। তবে সাধারণভাবে এরা খুব দুর্বল হয় এবং অল্প কিছুসংখ্যক সমূলে ক্যানসার তাড়াতে সক্ষম হয়।

সেজন্য একজন রোগীর টি-কোষগুলোকে গবেষণাগারে উন্নত করার চেষ্টা করা হয়েছে। তারপর পুনরায় রোগীর রক্তে প্রবেশ করানো হয়েছে।

এই ধরনের ইমনোথেরাপি চূড়ান্ত পর্যায়ের ক্যানসার চিকিৎসায় সন্তোষজনক ফলাফল করেছে। তবে সবসময় পর্যাপ্ত টি-কোষ উৎপাদন করা সম্ভব নয়।

লেপয়েন্তি বলেন, আমাদের পদ্ধতিতে কয়েক ডজন মিলিয়ন টি-কোষ প্রতিপালন দরকার হবে আর প্রচলিত পদ্ধতিতে কয়েক বিলিয়ন দরকার হয়।






মন্তব্য চালু নেই