মেইন ম্যেনু

ক্যানসার ঝুঁকির অন্যতম কারন হতে পারে ‘ঋতুস্রাব’

১৩ বছরের আগে মেয়েদের ঋতুস্রাব শুরু হলে, ক্যানসারের ঝুঁকি বাড়ে বলে জানায় ভারতের নেতাজী সুভাষ চন্দ্র বসু ক্যানসার রিসার্চ ইনন্সটিটউশনের (এনসিআরআই) একটি গবেষনা।

গবেষনা অনুযায়ী, যাদের ঋতুস্রাব ১৩ বছরের আগে হয় তাদের পর্বরতীকালে ক্যানসার হওয়ার সম্ভাবনা বেড়ে যায়। এই বয়সের আগে ঋতুস্রাব হওয়ার অর্থ হরমোনের অসমতা।

স্তন ক্যানসারের অন্যতম কারণই হল হরমোনের অসমতা।

এছাড়াও এই গবেষনায় উঠে এসেছে আরেকটি গুরুত্বপূর্ণ তথ্য। এই গবেষনায় দেখা যায়, স্তন ক্যানসারের অন্যতম আরেকটি কারণ সন্তান হওয়ার পরে টানা ছয়মাস বুকের দুধ না দেওয়া।

গবেষনা দলের প্রধান আশিষ মুখোপাধ্যায় বলেন, ‘‘যারা সন্তান জন্মের পরে টানা ছয়মাস বুকের দুধ খাওয়ান না অন্যদের তুলনায় তাঁদের স্তন ক্যানসারের সম্ভাবনা দেড় গুন বেশি থাকে।”

গবেষনা প্রতিবেদন ‘ইন্ডিয়ান জার্নাল অব মেডিক্যাল রিসার্চ’ ২০১৫ সালে প্রকাশিত হয়।

এই প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, ক্যানসারকে ‘‘দূর্ভাগ্যের তত্ব” বলা উচিত নয়। কারণ, বেশিরভাগ ক্ষেত্রে তাঁরাই স্তন ক্যানসারে আক্রান্ত হন যাদের হরমোনের এই অসমতাগুলি দেখা যায়।

সুতরাং, যাদের জীবনের প্রথম ভাগে ঋতুস্রাব তাড়াতাড়ি হয়েছে কিংবা যে টানা ছয় মাস সন্তানকে বুকের দুধ খাওয়াননি, তাঁরা যদি ৩০ বছরের পর থেকে বাড়তি সচেতনতা অবলম্বন করেন তাহলে সহজেই ক্যানসারের নিরাময় সম্ভব।

গবেষকেরা জানাচ্ছেন, বেশিরভাগ স্তন ক্যানসার দেখা যায় ৪৫ বছরের পরে। তবে, নারীরা যদি তিরিশ বছরের পর থেকে বছরে অন্তত একবার তাঁদের চেক-আপ করান তাহলে অনেকক্ষেত্রেই রোগের সহজ নিরাময় সম্ভব হয়।






মন্তব্য চালু নেই