মেইন ম্যেনু

কয়েদিদের তৎপরতায় বাঁচলেন কারারক্ষী

কেউ খুনের দায়ে জেল খাটছেন, কেউ চুরির অপরাধে, তো কেউ ডাকাতির জন্য। এক সময় হাতে বন্দুক বা ছুরি ধরা মানুষগুলোর মানবিক মুখ দেখল গোটা বিশ্ব। টেক্সারের উইথফোর্ডের একটি জেলের ভিতরে কয়েদিদের মানবিকতাকে প্রশংসা না করে পারলেন না জেল অধিকর্তারাও।

গত ২৩ জুনের ঘটনা। ওই জেলের একটি সেলে আট জন কয়েদি ছিলেন। প্রত্যেকের হাতেই হতাকড়া পরানো। সেলের ভিতর তাঁরা নিজেদের মধ্যে গল্পে মশগুল ছিলেন। সেলের বাইরে এক পুলিশকর্মী পাহারায় ছিলেন। হঠাত্ই তাঁর হার্ট অ্যাটাক হয়। ওই পুলিশকর্মী চেয়ার থেকে মাটিতে পড়ে যান। এই দৃশ্য চোখে পড়তেই ওই আট কয়েদিদের সন্দেহ হয় কিছু একটা ঘটেছে। তাঁরা সেলের মধ্য থেকেই সাহায্যের জন্য চিত্কার করতে থাকেন। কিন্তু কোনও সাড়া না পেয়ে সেলের দরজার তালা ভেঙে বাইরে এসে ওই পুলিশকর্মীকে ওঠানোর চেষ্টা করেন। পাশাপাশি, সাহায্যের জন্য অন্য কারারক্ষীদের ডাকাডাকি করতে থাকেন। ভিতরে হইচই শুনে কয়েক জন কারারক্ষী ছুটে আসেন। প্রথমে কয়েদিদের সেলের ভিতরে ঢোকান। তার পর ওই রক্ষীকে উদ্ধার করে চিকিত্সার জন্য হাসপাতালে পাঠান। গোটা ঘটনাটা মাত্র ১৫ মিনিটের মধ্যে ঘটে। চিকিত্সকেরা জানিয়েছেন, আর একটু দেরি হলে হয়তো ওই কারারক্ষীর মৃত্যু হতে পারত।

কয়েদিদের এক জন নিক কেল্টন বলেন, “ওই কারারক্ষীকে পড়ে যেতে দেখে কখনওই মনে হয়নি সাহায্য করব না। তাঁর কাছে বন্দুক ছিল, তবুও ঝুঁকি নিয়ে সাহায্য করতে এগিয়ে গিয়েছি।”

এই জেলেই বেশ কয়েকটি ভয়ঙ্কর স্মৃতির কথাও মনে করিয়েছেন সার্জেন্ট রায়ান স্পিগেল। এই জেলেই কারারক্ষীদের মেরে জেল ভেঙে পালানোর মতো ঘটনাও বহু বার ঘটেছে। কিন্তু, কয়েদিদের এই দৃশ্য বিরল। পুরো ঘটনাটি জেলের ভিতরের সিসিটিভি ফুটেজে ধরা পড়েছে।

দেখুন সেই ভিডিও






মন্তব্য চালু নেই